সপ্তাহ শেষে ৩০ পয়েন্ট যোগ ডিএসই সূচকে

সপ্তাহের শেষ দিন বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে সূচক বাড়লেও লেনদেনের পরিমাণ আগের দিনের চেয়ে কমেছে।

বৃহস্পতিবার দিন শেষে ঢাকার বাজারের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিন থেকে ২১ দশমিক ১৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৩০ শতাংশ বেড়ে ৭ হাজার ১৭ দশমিক ২৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

সপ্তাহ শেষে ডিএসই সূচকে যোগ হয়েছে ২৯ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে ডিএসই সূচকে যোগ হয়েছিল ২৩১ পয়েন্ট।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ আগের দিনের তুলনায় ২৫ দশমিক ৩২ শতাংশ বা ৪২১ কোটি ৩৩ লাখ টাকা কমে একহাজার ২৪২ কোটি ৮৪ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়।

এদিন ডিএসইতে হাতবদল হওয়া ৩৭৮টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিটের মধ্যে ৪৪ শতাংশের দাম কমেছে। বিপরীতে ৪১ শতাংশের দাম বেড়েছে; অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫ শতাংশের দাম।

ঢাকার অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৬ দশমিক ৯৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ৫০১ দশমিক ৭১ পয়েন্টে।

ডিএস৩০ সূচক ৯ দশমিক ৫২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২ হাজার ৬১৬ দশমিক ৩০ পয়েন্টে।

লেনদেনে শীর্ষ ১০

বিএসসি, পাওয়ার গ্রীড, বেক্সিমকো, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, আরএকে সিরামিক, ফরচুন সুজ, তিতাস গ্যাস, বেক্সিমকো গ্রীন সুকুক আল ইসতিসনা, ফারইস্ট ইসলামি লাইফ ইন্স্যুরেন্স ও তৌফিকা ফুড।

দর বৃদ্ধিতে শীর্ষ ১০

রংপুর ফাউন্ড্রী, বিএসসি, ফারইস্ট ইসলামি লাইফ ইন্স্যুরেন্স, অ্যাপেক্স ফুডস, পেনিনসুলা চিটাগং, জেমিনী সী ফুড, এএমসিএল (প্রাণ), অ্যাপেক্স ফুটওয়ার, ওয়াটা ক্যামিকল ও পাওয়ার গ্রীড।

দরপতনে শীর্ষ ১০

এসআইবিএল, বিআইএফসি, মেঘনা পেট, ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি ফাইন্যান্স মিঃ ফাঃ ১, শ্যামপুর সুগার, এসইএমএল এফবিএসএল গ্রোথ ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিঃ ফাঃ, মুন্নু এগ্রো, এশিয়ান টাইগার ও পিপলস ইন্স্যুরেন্স।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের পুঁজিবাজারের প্রধান সূচক সিএএসপিআই ১৩ দশমিক ৩৬ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ বেড়ে অবস্থান করছে ২০ হাজার ৫১০ দশমিক ৭২ পয়েন্টে।

বৃহস্পতিবার এই বাজারে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ৬৯ শতাংশ বা ৪৯ কোটি ৯২ লাখ টাকা কম।

এদিন মোট ২২ কোটি ৪৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিন ছিল ৭২ কোটি ৩৫ লাখ টাকা।

সিএসইতে ২২৬টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৮টির, কমেছে ৯৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির দর।