এক সপ্তাহে ৮৮ পয়েন্ট যোগ ডিএসই সূচকে

সপ্তাহের শেষ দিন বাংলাদেশের দুই পুঁজিবাজারে সূচক সামান্য বেড়েছে।

বৃহস্পতিবার দিন শেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ১৬ দশমিক ২৬ পয়েন্ট বা দশমিক ২৩ শতাংশ বেড়ে ৭ হাজার ১০৫ দশমিক ৬৯ পয়েন্ট হয়েছে।

আর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক সিএএসপিআই ৬৫ দশমিক ৫২ পয়েন্ট বা দশমিক ৩২ শতাংশ বেড়ে ২০ হাজার ৮১৭ দশমিক ১৭ পয়েন্টে দিন শেষ করেছে।

গত সপ্তাহের শেষ দিন ১৩ জানুয়ারি ডিএসইতে লেনদেশ শেষ হয়েছিল সূচকের ঘরে ৭ হাজার ১৭ দশমিক ২৩ পয়েন্ট নিয়ে। এই হিসেবে গত এক সপ্তাহে ৮৮ দশমিক ৪৬ পয়েন্ট যোগ হয়েছে এই সূচকে।

এদিন ঢাকার বাজারে লেনদেন আগের দিনের চেয়ে ৭ দশমিক ৭৪ শতাংশ বা ১৩৪ কোটি ৩৭ লাখ টাকা বেড়েছে।

ঢাকায় এদিন ১ হাজার ৬০১ কোটি ২০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়, যা আগের কর্মদিবসে ১ হাজার ৭৩৫ কোটি ৫৭ লাখ টাকা ছিল।

সূচক ও লেনদেন বাড়লেও ডিএসইতে ৪৬ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম কমেছে এদিন। এর বিপরীতে ৪৩ শতাংশের দাম বেড়েছে এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১১ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম।

বৃহস্পতিবার এ বাজারে লেনদেন হয়েছে ৩৭৮টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এর মধ্যে ১৬২টির দর বেড়েছে এবং ১৭৪টির কমেছে। অপরিবর্তিত রয়েছে ৪২টির দর।

ঢাকার অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক দশমিক ৭৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৫০৮ দশমিক ৪০ পয়েন্ট হয়েছে। আর ডিএস৩০ সূচক ১৮ দশমিক শূন্য ৮ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৬৩৫ দশমিক ৩৮ পয়েন্টে পৌঁছেছে।

ডিএসইতে লেনদেনে শীর্ষ ১০ কোম্পানি: বেক্সিমকো লিমিটেড, বিএসসি, ফরচুন সুজ, সাইফ পাওয়ার, এসিআই, জিপিএইচ ইস্পাত, পাওয়ার গ্রিড, এ্যাকটিভ ফাইন, লিন্ডে বিডি ও এশিয়া ইন্সুরেন্স।

ডিএসইতে দাম বাড়ার তালিকায় শীর্ষ ১০ কোম্পানি: কেয়া কসমেটিক্স, দেশবন্ধু গার্মেন্টস, গোল্ডেন সন, গ্লোবাল হ্যাভি কেমিক্যাল, ইউনিয়ন ইন্সুরেন্স, গোল্ডেন সন, ন্যাশনাল টি, ইয়াকিন পলিমার, বেক্সিমকো লিমিটেড ও লিন্ডে বিডি।

সবচেয়ে বেশি দর হারানো ১০ কোম্পানি: তাল্লু স্পিনিং, ফুয়াং ফুড, ফারইস্ট লাইফ ইহ্নুরেন্স, দেশ গার্মেন্টস, প্রাইম লাইফ ইন্সুরেন্স, অরিয়ন ইন্সফিউশন, ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস, সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ, ফরচুন সুজ, অগ্নি সিস্টেম।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও এদিন সূচকের পাশাপাশি লেনদেন বেড়েছে। আগের দিনের তুলনায় ১১ দশমিক ৬৮ শতাংশ বা ৪ কোটি ৬১ হাজার টাকা বেড়ে মোট ৪৪ কোটি ৯ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়েছে। বুধবার ৩৯ কোটি ৪৮ লাখ টাকা শেয়ার লেনদেন হয়েছিল চট্টগ্রামে।

সিএসইতে ৩০৮টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড কেনাবেচা হয়েছে এদিন। এর মধ্যে ১২৫টির দর বেড়েছে, ১৩০টির কমেছে এবং ৫৩টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।