চিপ উৎপাদন ফি ২০ শতাংশ বাড়াতে পারে স্যামসাং

ক্রেতাদের জন্য চিপ উৎপাদন ফি ২০ শতাংশ বাড়ানোর বিষয়টি ‘বিবেচনা করছে’ স্যামসাং। সেই লক্ষ্যে, বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে কথা বলছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে চিপ উৎপাদন সংশ্লিষ্ট কথোপকথনের বিষয়টি মার্কিন প্রকাশনা ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে এসেছে শুক্রবার।

এ বছরের দ্বিতীয়ার্ধ থেকে এ পদক্ষেপের বাস্তবায়ন শুরু হতে পারে। ইলেকট্রনিক বাজারজুড়ে কাঁচামাল ও লজিস্টিকস খরচ বেড়ে যাওয়ার কারণে কোরিয়ান ইলেকট্রনিক জায়ান্টের এই পদক্ষেপ বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রের বরাতে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে ব্লুমবার্গ।

রয়টার্স বলছে, ঠিকাদারি-ভিত্তিক চিপ তৈরি ফি সম্ভবত ১৫ থেকে ২০ শতাংশ বাড়তে পারে, যা চিপের জটিলতার মাত্রার উপর নির্ভর করবে। এ ছাড়া, ‘লিগ্যাসি নোডে’ উৎপাদিত চিপের বেলায় দাম আরও বাড়তে পারে।

স্যামসাং এরইমধ্যে কয়েকজন বিনিয়োগকারীর সঙ্গে আলোচনা শেষ করেছে ও অন্যদের সঙ্গে আলোচনা এখনও চালিয়ে যাচ্ছে বলে প্রতিবেদনে লিখেছে ব্লুম্বার্গ।

তবে, স্যামসাং এ বিষয়ে রয়টার্সকে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

‘তাইওয়ান সেমিকনডাকটর ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি (টিএসএমসি)’-এর পর বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ চিপ উৎপাদক স্যামসাং।

বর্তমান প্রান্তিকে বিক্রি ৩৭ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধির পূর্বাভাস আগেই দিয়েছিল টিএসএমসি। এ বছর বিশ্বব্যাপী চিপ সংকট থাকার পরও তাদের উৎপাদনক্ষমতা একই থাকার আভাস দিয়েছে তাইওয়ানের এই উৎপাদক প্রতিষ্ঠান।

বৈশ্বিক চিপ সঙ্কটের কারণে টিএসএমসির মতো উৎপাদকের খাতায় অর্ডার এরই মধ্যে পূর্ণ হয়ে আছে এবং তারা উৎপাদনে প্রিমিয়াম মূল্য রাখার সুযোগ পেয়েছে বলে প্রতিবেদনে লিখেছে রয়টার্স।

বছরের প্রথম প্রান্তিকে আয়ের হিসাবে স্যামসাং জানিয়েছিল, তাদের উৎপাদন ক্ষমতার তুলনায় গ্রাহকদের চাহিদা বেশি। এই ঘাটতি শীঘ্রই নিরসন হওয়ার আশা করছে প্রতিষ্ঠানটি।