শিক্ষক খুন: মসজিদ বন্ধ করল ফ্রান্স

ফ্রান্সে ছুরি হামলায় এক শিক্ষক নিহতের ঘটনার পর ইসলামপন্থিদের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া পুলিশী অভিযানের মধ্যে রাজধানী প্যারিসের উপকণ্ঠে একটি মসজিদ সাময়িকভাবে বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

খবরে বলা হয়েছে, প্যারিসের উপকণ্ঠে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় একটি শহরতলীর এই গ্র্যান্ড মসজিদ ফেইসবুকে একটি ভিডিও শেয়ার করেছিল শিক্ষক সেমুয়েল প্যাটি খুন হাওয়ার আগে। ওই ভিডিও প্যাটির বিরুদ্ধে ঘৃণা উস্কে দিয়েছে।

পুলিশ মঙ্গলবার মসজিদের বাইরে মসজিদটি বন্ধের নোটিশ সেঁটে দিয়েছে। ঘৃণা-বিদ্বেষ যারাই ছড়াবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার অঙ্গীকার করেছে কর্র্তৃপক্ষ।

সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ঠেকাতে ছয় মাসের জন্য মসজিদটি বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন নোটিশ ইস্যুকারী দপ্তরের প্রধান কর্মকর্তা।

ফ্রান্সে গত শুক্রবার ৪৭ বছর বয়সী স্কুল শিক্ষক সেমুয়েল প্যাটিকে প্রকাশ্য দিবালোকে গলা কেটে হত্যার পর ঘটনাস্থলের কাছেই পাহারায় থাকা পুলিশের গুলিতে হামলাকারী নিহত হয়।

চলতি মাসের শুরুতে ইতিহাসের ওই শিক্ষক তার ক্লাসরুমে নবী মোহাম্মদ (সাঃ) ব্যাঙ্গচিত্র দেখিয়েছিলেন। এরপর স্কুলের বাইরের রাস্তাতেই ছুরি হামলায় তিনি খুন হন।

হামলাকারী চেচেন বংশোদ্ভূত ১৮ বছর বয়সী এক তরুণ বলে জানিয়েছে ফরাসী গণমাধ্যম। পুলিশ হামলাকারীকে গুলি করে হত্যার পর এ পর্যন্ত শিক্ষক খুনের ঘটনায় জড়িত আরও ১১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

ইসলামপন্থি সন্দেহে এক ডজনেরও বেশি বাড়িতে এবং ইসলামিক অ্যাসোসিয়েশনগুলোতে এরই মধ্যে তল্লাশিও চালিয়েছে পুলিশ।

চরম ধর্মীয় বিশ্বাস থাকার সন্দেহে বিদেশিদের বিরুদ্ধে পুলিশ তল্লাশি চালাচ্ছে। শিক্ষকের ওপর হামলাকারীর সমর্থনে স্যোশাল মিডিয়ায় বার্তা পোস্ট করার সন্দেহে অনেককে জেরাও করা হচ্ছে।