আফগান বাহিনীর প্রথম কাজ তালেবানের গতিরোধ করা: অস্টিন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। ছবি: রয়টার্স
তালেবান যোদ্ধাদের অগ্রযাত্রা শ্লথ করাই আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর প্রথম কাজ হওয়া উচিত বলে মনে করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন।

তিনি বলেছেন, এরপর তারা দখলকৃত এলাকা পুনরুদ্ধারের পরিকল্পনা করতে পারে।

আফগানিস্তানে একের এক এলাকা তালেবানের মুঠোয় চলে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে আফগান বাহিনী রণকৌশল পুনর্বিন্যস্ত করতে যাচ্ছে এবং কাবুলসহ অন্যান্য শহর, সীমান্ত ক্রসিং ও গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার সুরক্ষায় সৈন্য সংখ্যা বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে।

আলাস্কায় অবস্থানরত মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী আফগানিস্তান পরিস্থিতি নিয়ে শনিবার বলেন, “আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনী তালেবানকে থামাতে পারবে কিনা তা নির্ধারণের আগে আমি মনে করি প্রথম কাজটি হচ্ছে তালেবানের অগ্রযাত্রা ধীর করে তোলা।

সরকারি বাহিনীর রণকৌশল পুনর্বিন্যাস প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আফগানদের সামর্থ্য আছে, তবে কী ঘটতে যাচ্ছে তা পর্যবেক্ষণ করছি আমরা।”

বুধবার পেন্টাগন জানিয়েছে, তাদের হিসাবে এ পর্যন্ত বেশি আফগানিস্তানের অর্ধেকের বেশি জেলা তালেবানের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। তালেবান যোদ্ধারা অর্ধেকের বেশি প্রাদেশিক রাজধানীর উপকণ্ঠে অবস্থান নিয়েছে এবং চাপ সৃষ্টি করে চলেছে। সেসব শহরকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলার চেষ্টা করে যাচ্ছে।

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের শেষ পর্যায় চলতে থাকার মধ্যেই দ্রুতগতিতে দেশের বিভিন্ন এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে তালেবান। তবে আফগান বাহিনীকে সহায়তার জন্য বিমান হামলা অব্যাহত রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ঘোষণা অনুযায়ী ৩১ অগাস্টের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সব সেনা সরিয়ে নেবে যুক্তরাষ্ট্র।

তবে বাইডেন প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, আফগান বাহিনীর জন্য আর্থিক সহায়তা অব্যাহত রাখা হবে এবং থমকে যাওয়া শান্তি আলোচনা চালু করতে কূটনৈতিক উদ্যোগ দ্বিগুণ করবেন।

আফগানিস্তানের শরণার্থীদের জরুরি চাহিদা মেটাতে শুক্রবার ১০ কোটি ডলারের একটি তহবিল অনুমোদন করেছেন বাইডেন।