নতুন ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র সাবমেরিন থেকে: উত্তর কোরিয়া

কেসিএনএর প্রকাশিত সাবমেরিন থেকে উত্তর কোরিয়ার নতুন ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার দৃশ্য। ছবি: কেসিএনএ ভায়া রয়টার্স
মঙ্গলবার দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী জানিয়েছিল, উত্তর কোরিয়া তাদের পূর্বাঞ্চলীয় উপকূলে সাবমেরিন থেকে একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (এসএলবিএম) ছুড়েছে বলে তাদের বিশ্বাস।

এর একদিন পর বুধবার উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যম কেসিএনএ এক বিবৃতিতে সাবমেরিন থেকে নতুন ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালানোর কথা নিশ্চিত করেছে, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

বিশ্লেষকরা বলছেন, মাঠে দ্রুত একটি কার্যকরী ক্ষেপণাস্ত্রবাহী সাবমেরিন নামানো এ পরীক্ষার লক্ষ্য হতে পারে।

গত কিছু দিন ধরে উত্তর কোরিয়া ধারাবাহিকভাবে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়ে আসছে। এর আগে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রগুলো হাইপারসনিক ও দীর্ঘ-পাল্লার ছিল বলে জানিয়েছিল তারা।

কেসিএনএ জানিয়েছে, নতুন এ ক্ষেপণাস্ত্রটিতে ‘উন্নত নিয়ন্ত্রণ নির্দেশিকা প্রযুক্তি’ আছে যা এটিকে ট্র্যাক করা কঠিন করে তুলতে পারে।

এই ক্ষেপণাস্ত্রটি উত্তর কোরিয়ার সিনপো শহরের নিকটবর্তী সাগর থেকে ছোড়া হয় বলে দক্ষিণের জয়েন্ট চিফস অব স্টাফ (জেসিএস) জানিয়েছে। সিনপোতে নিজেদের সাবমেরিন বহরের পাশপাশি সাবমেরিন থেকে নিক্ষেপযোগ্য ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (এসএলবিএম) পরীক্ষার সরঞ্জামাদি রাখে দেশটি।

উত্তর কোরিয়ার পুরনো ধরনের সাবমেরিনের একটি বড় বহর আছে। মঙ্গলবারের পরীক্ষায় ব্যবহৃত গোরে-শ্রেণির পরীক্ষামূলক সাবমেরিনটি ছাড়া সেগুলোর কোনোটিতেই এখনও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার প্রযুক্তি স্থাপন করা হয়নি বলে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।   

কেসিএনএ জানিয়েছে, ২০১৬ সালে পুরনো ধরনের একটি এসএলবিএম পরীক্ষার জন্য এই একই সাবমেরিন ব্যবহার করা হয়েছিল।

কেসিএনএ-র প্রকাশিত ছবিতে উত্তর কোরিয়ার আগের এসএলবিএমের তুলনায় এবার পাতলা, অপেক্ষাকৃত ছোট একটি ক্ষেপণাস্ত্র দেখা গেছে। ছোট এসএলবিএমের কারণ এই হতে পারে, যে এতে একটি সাবমেরিনে অনেকগুলো ক্ষেপণাস্ত্র রাখা যাবে।

হোয়াইট হাউস আরও ‘উস্কানি’ দেওয়া থেকে বিরত থাকতে উত্তর কোরিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। দেশটির অস্ত্র কর্মসূচী নিয়ে কূটনৈতিকভাবে আলোচনায় বসার জন্য যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তুত আছে বলে মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সাকি জানিয়েছেন। 

যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া তাদের সামরিক তৎপরতার মাধ্যমে উত্তেজনা বাড়িয়ে তোলার মধ্যেই কূটনীতির কথা বলছে অভিযোগ করে এ পর্যন্ত এসব প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে এসেছে উত্তর কোরিয়া।   

বুধবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেন, উত্তর কোরিয়ার সর্বশেষ অস্ত্র পরীক্ষার বিষয়টি তুলবে বলে জানিয়েছেন কূটনীতিকরা। 

আরও পড়ুন