মলনুপিরাভিরের ‘কার্যকারিতা কমেছে’

মলনুপিরাভির পিল করোনাভাইরাসের রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যুর ঝুঁকি যে হারে কমায় বলে আগে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল, নতুন ডেটা তাকে ভুল প্রমাণিত করেছে।

মার্কের তৈরি মলনুপিরাভির পিল করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যুর ঝুঁকি যে হারে কমায় বলে আগে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল, নতুন ডেটা তাকে ভুল প্রমাণিত করেছে।

মার্ক অ্যান্ড কো. শুক্রবার যে ডেটা প্রকাশ করেছে, তাতে এখন হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যুর ঝুঁকি কমানোর ক্ষেত্রে ওই পিলের কার্যকারিতা ৩০ শতাংশে নেমে এসেছে বলে রয়টার্স জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানিটি অক্টোবরে সাময়িক যে ডেটা প্রকাশ করেছিল, তাতে ৭৭৫ রোগীর ক্ষেত্রে ওই পিল হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যুর ঝুঁকি ৫০ শতাংশ কমার তথ্য ছিল। শুক্রবার যে ডেটা প্রকাশিত হয়েছে, তা ১৪০০ রোগী থেকে যাওয়া।

আর এই খবরে মার্কের শেয়ারের দাম বাজার শুরুর আগের লেনদেনে ৩ শতাংশ কমে ৭৯.৪১ ডলারে নেমেছে।   

রিজেবাক বায়োথেরাপিউটিকসের সঙ্গে যৌথভাবে তৈরি ওষুধ মলনুপিরাভির নিয়ে নতুন যে ডেটা মিলেছে তা যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের (এফডিএ) কাছে জমা দেওয়া হয়েছে বলে কোম্পানিটি জানিয়েছে। এফডিএর বিশেষজ্ঞ উপদেষ্টারা মঙ্গলবার বৈঠকে বসবেন।

পাঁচ দিন ধরে দিনে দুবার মলনুপিরাভির সেবনকারীদের মধ্যে ৭ দশমিক ৩ শতাংশ হাসপাতালে ভর্তি হন, যাদের মধ্যে কেউ চিকিৎসার ২৯ দিন পরও মারা যায়নি বলে গত মাসে প্রকাশিত সাময়িক পর্যালোচনায় দেখানো হয়েছে। অন্যদিকে প্লাসেবো পাওয়া রোগীদের ক্ষেত্রে এই হার ১৪ দশমিক ১ শতাংশ।

এখন হালনাগাদ ডেটায় দেখা যাচ্ছে, মলনুপিরাভির সেবনকারী ৬ দশমিক ৮ শতাংশ হাসপাতালে ভর্তি হন, যাদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়। প্লাসেবো সেবনকারীদের ক্ষেত্রে এই হার ৯ দশমিক ৭ শতাংশ।