টোঙ্গায় সুনামির ধাক্কায় পেরুতে ‘পরিবেশ বিপর্যয়’

পেরুর সমুদ্র উপকূলে যতদূর চোখ যায় শুধু তেলের স্তর আর কালো পানি। টোঙ্গায় সুনামির প্রভাবেই ভয়াবহ পরিবেশ বিপর্যয় দেখা দিয়েছে সেখানে।

টোঙ্গায় গত শনিবার আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে সৃষ্ট সুনামির ধাক্কায় পেরুতে তেলের ট্যাংকার ফুটো হয়ে এই বিপর্যয় ঘটেছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

বিবিসি জানায়, সুনামির বিশাল ঢেউয়ে পেরুর রাজধানী লিমার ‘লা পমপিলা’ তেল শোধনাগারের ওই ট্যাংকার ফুটো হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে ৬ হাজার ব্যারেল তেল।

তেলের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া তিনটি সৈকত সিল করে দিয়েছে পেরু কর্তৃপক্ষ। সমুদ্রের পানি দূষিত হওয়ায় বহু মাছ ও অন্যান্য সামুদ্রিক প্রাণীও মারা যাচ্ছে বলে জানিয়েছে তারা।

পেরুর পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় টুইটারে পোস্ট করা এক বিবৃতিতে বলেছে, “সম্প্রতিক সময়ে লিমার আশেপাশ ঘিরে এটিই সবচেয়ে ভয়াবহ পরিবেশ বিপর্যয়। এতে শত শত জেলে পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।”

পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের কর্র্মকর্তারা এর জন্য তেল শোধনাগার পরিচালনাকারী স্প্যানিশ জ্বালানি কোম্পানি রেপসোলকে অবিলম্বে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন।

তবে কোম্পানিটির যোগাযোগ বিষয়ক পরিচালক টিন ভান ডেন ওয়াল বেক বুধবার এক সাক্ষাৎকারে তেল ট্যাংকার ফুটো হওয়ার ঘটনায় দায় অস্বীকার করেছেন। তেল খুব সামান্য ছড়িয়েছে বলেও দাবি করেছেন তিনি।

জাতীয় বেতারে ওয়াল বেক বলেন, “আমরা এই পরিবেশ বিপর্যয় ঘটাইনি। আর এর জন্য কে দায়ী তাও বলতে পারি না।”

ওদিকে, পেরুর প্রধানমন্ত্রী মিরথা ভাসকুয়েজ সাংবাদিকদের বলেছেন, বড় ধরনের তেল ছড়ানোর মতো বিপর্যয় সামাল দেওয়ার কোনও পরিকল্পনা কোম্পানিটির ছিল না বলেই প্রতীয়মান হয়েছে।

কৌঁসুলিরা তেল ছড়ানোর এই ঘটনায় রেপসোলের ভূমিকা খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন।

পরিবেশ মন্ত্রণালয়ও সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, স্প্যানিশ এই জায়ান্ট জ্বালানি কোম্পানি ৩ কোটি ৪৫ লাখ মার্কিন ডলারের বেশি জরিমানার মুখে পড়তে পারে।

ওদিকে, পেরুর জ্বালানি নিয়ন্ত্রক সংস্থা ওসিনারগমিন এক ‍বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা তেল শোধনাগারটির চারটি টার্মিনালের একটি বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে। তেল ছড়ানোর কারণ স্পষ্টভাবে নির্ধারিত না হওয়া পর্যন্ত সেটি বন্ধ রাখা হবে।

কর্মকর্তারা বলছেন, বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণী ও গাছপালা থাকা একটি সুরক্ষিত এলাকার প্রায় ১৮,০০০ স্কয়ার কিলোমিটার তেলের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সরকারের পরিচালনায় সমুদ্র সৈকতগুলোর তিন কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তেল পরিস্কারের কাজও শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন