জার্মানির হাইডেলব্যার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুলি, নিহত ১

ছবি: ইউটিউব ভিডিও
জার্মানির হাইডেলব্যার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি লেকচার হলে ঢুকে এক বন্দুকধারী গুলি চালিয়েছে। এ ঘটনায় একজন নিহত এবং তিনজন গুরুতর আহত হয়েছে।

পরে বন্দুকধারী নিজেকেও গুলি করে আত্মহত্যা করেছে। বন্দুকধারী লম্বা বন্দুক ব্যবহার করেছে এবং এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়েছে বলে সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে পুলিশ।

বিবিসি জানায়, এই রক্তক্ষয়ী ঘটনার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের নয়েনহাইমার ফেল্ড ক্যাম্পাসে বড় ধরনের পুলিশি অভিযান শুরু হয়েছে। হামলাটি হয়েছিল সেখানেই।

উদ্ধারকাজ এবং জরুরি সেবা যাতে নির্বিঘ্নে চলতে পারে সেজন্য লোকজনকে ঘটনাস্থল এড়িয়ে চলতে বলেছে পুলিশ। কর্তৃপক্ষ বলছে, বন্দুকধারী একাই ছিলেন।

জার্মানির বিল্ড পত্রিকা জানিয়েছে, বন্দুকধারী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীও ছিলেন। হামলার পেছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য থাকার কোনও আভাস এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি৷

হাইডেলব্যার্গ বিশ্ববিদ্যালয় ১৩৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়৷ সেখানকার নয়েনহাইমার ফেল্ড ক্যাম্পাসে ন্যাচারাল সায়েন্সের বিভিন্ন বিভাগ অবস্থিত৷ আর হেইডেলবার্গ শহরটির অবস্থান জার্মানির দক্ষিণ-পশ্চিমে। সেখানে প্রায় ১৬০,০০০ মানুষের বাস।

ইউরোপে বন্দুক আইন সবচেয়ে কঠোর যেসব দেশে তার মধ্যে জার্মানি অন্যতম। দেশটিতে বিদ্যাপীঠে গুলির ঘটনাও বিরল। ২৫ বছরের নিচের বয়সী যে কারও জন্য দেশটিতে বন্দুক রাখার লাইসেন্স পেতে হলে তাকে মানসিক পরীক্ষায় পাস হতে হয়।

সোমবারের গুলির ঘটনায় পুলিশ প্রথমে চারজন আহত হওয়ার খবর জানিয়েছিল। তবে পরে তাদের মধ্যে হাসপাতালে একজনের মৃত্যু হওয়ার খবর নিশ্চিত করে জানিয়েছে পুলিশ।