ঈশ্বরগঞ্জের প্রস্তাবিত থানা আঠারবাড়িতে অন্তর্ভুক্তি চায় না জাটিয়াবাসী

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায় প্রস্তাবিত ‘আঠারবাড়ি’ থানায় ‘জাটিয়া’ ইউনিয়নকে অন্তর্ভুক্ত না করার দাবি জানিয়েছে ওই এলাকার মানুষ।

এই দাবিতে রোববার দুপুরে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন জাটিয়া ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ।

মানববন্ধন শেষে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা-ইউএনও বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সাবেক সংসদ সদস্য মো. আব্দুছ ছাত্তার, জাটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল হক ঝন্টু, উপজেলা যুব সংহতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন আশিক, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মাসুম বিল্লাহ মামুন, সহ-সভাপতি আমিনুল হক লাল চাঁন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু, ইউনিয়ন যুবলীগের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা প্রস্তাবিত নতুন থানায় জাটিয়া ইউনিয়নকে অন্তর্ভুক্তির তীব্র প্রতিবাদ জানান। কোনোভাবেই এই সিদ্ধান্ত মানা হবে না বলে তারা জানিয়ে দেন।

জাটিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শামসুল হক ঝন্টু বলেন, আঠারবাড়ির সঙ্গে জাটিয়া ইউনিয়নের সরাসরি কোনো সড়ক যোগাযোগ নেই। ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা সদরের মাত্র আড়াই কিলোমিটার দুর থেকে জাটিয়া ইউনিয়ন শুরু।

ঈশ্বরগঞ্জের কাছের মানুষজনকে উল্টোদিকে ১৫/২০ কিলোমিটার দুরত্বে পাঠানো কোনো সুস্থ মস্তিষ্কের কাজ হতে পারে না বলে তিনি মন্তব্য করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, “স্মারকলিপি গ্রহণ করেছি। পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপিটি পাঠানো হবে।”

২০১০ সালে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার দুটি ইউনিয়নের তদন্ত কেন্দ্র হিসেবে আঠারবাড়ি ইউনিয়নে একটি পুলিশ ফাঁড়ি প্রতিষ্ঠা করা হয়। আঠারবাড়ি এবং সরিষা ইউনিয়নের তদন্ত কার্যক্রম পরিচালিত হতো এই ফাঁড়ি থেকে। সম্প্রতি এই তদন্ত কেন্দ্রটিকে নতুন থানা ঘোষণার প্রক্রিয়ার গুঞ্জনে ক্ষিপ্ত হয়েছেন অনেকেই। কারণ নতুন থানায় যুক্ত হতে পারে জাটিয়া ও সোহাগী ইউনিয়ন। কিন্তু কোনোভাবেই এই সিদ্ধান্ত মানতে রাজি না জাটিয়া ও সোহাগী ইউনিয়নবাসী।