ঘরে বিস্ফোরণে দগ্ধ মিরকাদিমের মেয়রের স্ত্রীর মৃত্যু

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউট ভবন
ঘরে ‘গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে’ অগ্নিদগ্ধ মুন্সীগঞ্জের মিরকাদিম পৌরসভার মেয়রের স্ত্রী কানন বেগম চার দিন পর মারা গেছেন।

গত মঙ্গলবার অগ্নিদগ্ধ হওয়ার পর তাকে ঢাকায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে আনা হয়েছিল।

তাকে রাখা হয়েছিল আইসিইউতে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার বেলা পৌনে ১টায় তিনি মারা যান বলে ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানিয়েছেন।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “কানন বেগমের অবস্থা আগে থেকেই সংকটাপন্ন ছিলো। শরীরের প্রায় ৮০ শতাংশ দগ্ধ অবস্থায় আজ তিনি মারা গেছেন।”

মেয়র আবদুস সালামের স্ত্রী কানন বেগমের বয়স হয়েছিল ৪০ বছর।

মরদেহ ময়নাতদন্তের পর স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা বাচ্চু মিয়া।

মিরকাদিম পৌর মেয়রের বাসভবনে ‘সিলিন্ডার’ বিস্ফোরণে দগ্ধ ১৩

গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে মুন্সীগঞ্জের রামগোপালপুরের মেয়রের বাসভবনে আকস্মিক বিস্ফোরণে কানন বেগমসহ আরও অন্তত ১৩ জন দগ্ধ হন। তবে মেয়র সালাম অক্ষত ছিলেন।

ঘরে থাকা চার কাউন্সিলরও দগ্ধ হন। তারা হলেন- মো. সোহেল, মো. আওলাদ, দীন ইসলাম, রহিম বাদশা। আহত অন্যরা হলেন- মো. মোশারফ, মনির হোসেন, শ্যামল দাস, পান্না, কালু, মো. ইদ্রিস আলী, মঈনউদ্দিন ও মো. তাজুল।

দগ্ধ অবস্থায় ১২ জনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে ভর্তি করা হয়।

আহত প্যানেল মেয়র রহিম বাদশা সাংবাদিকদের বলেছিলেন, মেয়রের বাসভবনের তৃতীয় তলার এক কক্ষে তারা আলাপ করার সময়ই গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটে।

তিনি বলেন, “হঠাৎ করেই বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। মুহূর্তে কক্ষের ভেতর আগুনের শিখা দেখা যায়।বিস্ফোরণে কক্ষের আসবাবপত্র, জানালার কাচ ফেটে চুরমার হয়ে যায়।”