যৌতুকের দাবিতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা: স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

প্রতীকী ছবি
যশোরে যৌতুকের দাবিতে আট বছর আগে অন্তঃসত্ত্বা এক নারীকে হত্যার দায়ে তার স্বামীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক নীলুফার শিরিন এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিত আকিমুল ইসলাম যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নায়রা গ্রামের মৃত অহেদ আলীর ছেলে।

রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি বিচারক তাকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডও দিয়েছেন বলে আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল জানান।

মামলার বরাতে মুকুল বলেন, আকিমুল যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী হালিমা খাতুনকে প্রায়ই শারীরিক নির্যাতন করতেন। হালিমাও বিভিন্ন সময় তার বাবার কাছ থেকে টাকা এনে স্বামীকে দিতেন।

এক পর্যায়ে আকিমুল ১৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করলে ২০১৩ সালের ৩১ মে হালিমা তার বাবার কাছ থেকে এক লাখ টাকার একটি চেক এনে দেন।

দাবির পুরো টাকা না পেয়ে আকিমুল অন্তঃসত্ত্বা হালিমাকে মারধর করলে তার মৃত্যু হয়। এরপর আকিমুল ও তার পরিবারের লোকজন হালিমার লাশ ফেলে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় হালিমার বাবা লিয়াকত আলী বাদী হয়ে আকিমুলের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

তদন্ত শেষে ২০১৩ সালে ১৯ সেপেম্বর ঝিকরগাছা থানার এসআই কামাল হোসেন আকিমুলের বিরুদ্ধে অভিযোপত্র দাখিল করলে এ মামলার বিচারকাজ শুরু করে আদালত।