নীলফামারীতে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে ২ কিশোর গ্রেপ্তার

নীলফামারীর ডিমলা উপজেলায় কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুই কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারের পর মঙ্গলবার বিকেলে আদালত তাদের যশোরের কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বলে জানান ডিমলা থানার পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম।

দুই কিশোরের বাড়ি ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নে। তাদের বয়স ১৪ ও ১৫ বছর।

পরিদর্শক সিরাজুল মামলার নথির বরাতে বলেন, সোমবার দুপুরে কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা আত্মীয়র মৃত্যুর খবর পেয়ে সেখানে যান। বাড়িতে অন্য কেউ না থাকার সুযোগে ১২ বছর বয়সী এই কিশোরীকে ধর্ষণ করে এলাকার দুই কিশোর। কিশোরী অচেতন হয়ে পড়লে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে পালিয়ে যায় তারা। বিকেলে তার মা-বাবা বাড়ি ফিরে তাকে প্রথমে ডিমলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য নীলফামারী  সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসক মঙ্গলবার তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানন্তর করেন।

এ ঘটনায় সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে কিশোরীর বড় ভাই বাদী হয়ে দুই কিশোরের বিরুদ্ধে ডিমলা থানায় মামলা করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিমলা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বিশ্বদেব রায় বলেন, মামলার পর ওই রাতেই তারা ঝুনাগাছ চাপানী উনিয়নে পৃথক অভিযান চালিয়ে দুই কিশোরকে গ্রেপ্তার করেন। মঙ্গলবার বিকেলে নীলফামারী নারী ও শিশুনির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ২-এ হাজির করা হলে বিচারক তাদের যশোরের কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।