কুষ্টিয়ায় অপহরণ ও হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়ায় এক যুগ আগের একটি মামলায় তিন আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তাজুল ইসলাম রোববার আসামিদের অনুপস্থিতিতে এ রায় দেন।

রায়ে প্রত্যেককে ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়, যা অনাদায়ে তাদের প্রত্যেকককে আরও এক বছর করে কারাভোগ করতে হবে।

দণ্ডিতরা হলেন কুষ্টিয়া সদরের দহকুল নওয়াপাড়া গ্রামের ইয়ার আলীর ছেলে শহিদুল ইসলাম ওরফে শহীদ মেম্বার (৫২), ওমর আলীর ছেলে মো. চান্নু (৪৮) এবং মজিবর রহমানের ছেলে বক্কার ওরফে বক্কর (৪৭)।

মামলায় তিন আসামি খালাস দেওয়া হয়েছে।

মামলার বরাতে পিপি অনুপ কুমার নন্দী বলেন, ২০০৬ সালের ৭ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় দহকুল নওয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ইনতাজ আলীর ছেলে মাছ ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম শহিদকে (৪২) বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। পরে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। এর চার বছর পর ২০১০ সালে ১৯ মার্চ গ্রামের একটি পরিত্যক্ত কুয়ায় হাড় ও কাপড় উদ্ধার করে পুলিশ।

“পরিবারের মাধ্যমে লাশ শনাক্ত করা হয়; পরে নিহতের স্ত্রী নয় জনের নাম উল্লেখ করে কুষ্টিয়া থানায় মামলা করেন।”

এর আরও চার বছর পর ২০১৪ সালের ৭ মে ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন কুষ্টিয়া থানার এসআই আব্দুর রাজ্জাক মিয়া।

মামলার আসামিরা পলাতক রয়েছেন বলে জানান পিপি অনুপ।