নরসিংদীর ৩ খুন ঋণ থেকে বাঁচতে, প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে: পিবিআই

ঋণ থেকে বাঁচতে ও প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নরসিংদীতে দুই সন্তানসহ গৃহবধূকে ‘তার স্বামী’ হত্যা করেছেন বলে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেন (পিবিআই) জানিয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে পিবিআই কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার মো. এনায়েত হোসেন মান্নান।

গত রোববার সকালে নরসিংদীর বেলাব উপজেলার পাটুলি ইউনিয়নের বাবলা গ্রামের বাড়ি থেকে ওই গৃহবধূ ও তার দুই মিশু সন্তানের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। ওইদিন রাতেই নিহত গৃহবধূর ভাই বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে এনায়েত হোসেন মান্নান বলেন, নিহত নারীর স্বামী মাদকাসক্ত ও জুয়ারি। জুয়ার টাকা যোগার করতে তিনি স্ত্রীর নামে বিভিন্ন এনজিও, শ্বশুর, শ্যালকসহ নানা স্থান থেকে সুদে সাড়ে ৯ লাখ টাকা ঋণ নেন। সব ঋণ নেন স্ত্রীর নামে, যা সুদে-আসলে ১২ লাখ টাকা ছাড়িয়ে যায়।

মান্নান বলেন, এই টাকা পরিশোধের জন্য নিহতের স্বামীর উপর চাপ ছিল। সর্বশেষ জুয়া খেলার মতো কোনো টাকা তার হাতে ছিল না। তাই বাড়ির আঙিনা থেকে কয়েকটি গাছ বিক্রি করেন তিনি। কিন্তু ওই গাছ নেওয়ার সময় প্রতিবেশী চাচাতো ভাই রেনু মিয়ার সঙ্গে তার ঝগড়া হয়।

নরসিংদীতে দুই সন্তানসহ গৃহবধূ হত্যা, স্বামী আটক  

নরসিংদীতে ঘরের ভেতর মা ও দুই শিশুর গলাকাটা লাশ  

গ্রেপ্তার ব্যক্তি প্রথমদিকে চাচাতো ভাই রেনু মিয়া তাকে হত্যার হুমকি দিয়েছিলেন বলে পুলিশকে জানিয়েছিলেন।

এরপর হত্যার কথা স্বীকার করেন বলে পুলিশের ভাষ্য।

গ্রেপ্তার ব্যক্তির বরাতে মান্নান বলেন, এরই মধ্যে নিহত নারীর স্বামী জানতে পারেন ঋণ গ্রহীতা মারা গেলে ঋণের টাকা মওকুফ হয়ে যায়। এই চিন্তা থেকে তিনি স্ত্রীকে হত্যার পরিকল্পনা করেন।

পিবিআই কর্মকর্তা আরও বলেন, পরিকল্পনা অনুযায়ী ওই নারীর স্বামী রোববার রাতে বাড়ি ফিরে সন্তানদের সঙ্গে ঘুমিয়ে পড়েন। পরে রাত আড়াইটার দিয়ে স্ত্রীকে (৩৫) ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে ও গরু জবাইরে ছুরি দিয়ে আঘাত করে হত্যা করেন। স্ত্রীকে হত্যার পর সন্তানরা ঘটনা প্রকাশ করবে ভেবে ১৩ ও ৬ বছর বয়সী দুই সন্তানকেও হত্যা করেন। 

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।