যশোর বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা দুর্নীতির অভিযোগে বরখাস্ত

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মকর্তাকে দুর্নীতির অভিযোগে সাময়িক বরখাস্ত করা করা হয়েছে।

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. আহসান হাবীব স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এই ঘোষণা দেওয়া হয়, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

সাময়িক বরখাস্ত হায়াতুজ্জামান মুকুল যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগের উপ-পরিচালক।

একই সঙ্গে এ ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যর কমিটি গঠন করা হয়েছে।

অধ্যাপক মো. নাজমুল হাসানকে আহবায়ক, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আমিনুল হককে সদস্য সচিব ও মুজাহিদুল হককে সদস্য করে এই কমিটি গঠন করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক বিভাগ থেকে জানা গেছে, গত ২৩ মে ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাটা অপারেটরের তিনটি পদের নিয়োগ পরীক্ষা।

এই পরীক্ষায় এক নিয়োগ প্রার্থীকে টাকার বিনিময়ে টিকিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, নিয়োগ বাণিজ্যর অভিযোগে জনসংযোগ বিভাগের উপ-পরিচালক হায়াতুজ্জামান মুকুলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম যারা নষ্ট করছে তাদের সাথে প্রশাসন কোনো আপোষ করবে না।

তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে; তাদের রিপোর্ট পাওয়ার পর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

জনসংযোগ বিভাগের উপ-পরিচালক হায়াতুজ্জামান মুকুল বলেন, “আমি শিক্ষক-কর্মকর্তাদের গ্রুপিং রাজনীতির শিকার হয়েছি। এই ঘটনার সাথে আমার কোনো সম্পর্ক নেই।”