১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬

ভোটের সংঘাতে আরও এক আ. লীগ নেতার মৃত্যু

  • রাজশাহী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2018-12-31 14:12:18 BdST

bdnews24
রোববার বিকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ইসমাইল

রাজশাহীতে নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনায় আরও এক আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু হয়েছে।

গোদাগাড়ী থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, পালপুর উচ্চবিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে হামলায় আহত হওয়ার পর সোমবার সকাল সাড়ে ৭টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিহত ইসমাইল হোসেন (৫০) গোদাগাড়ী উপজেলার কাজিহাটা গ্রামের আজাহার কারির ছেলে। রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী) আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থীর দেওপাড়া ইউনিয়ন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন তিনি। এছাড়া তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি।

ওসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “ভোটের দিন বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ওই ভোটকেন্দ্রে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। এ সময় দুই পক্ষে ধাওয়া-পাল্টা-ধাওয়া হয়।

“একপর্যায়ে ইসমাইল পাশের একটি বাড়িতে আশ্রয় নিলে সেখানে গিয়ে তাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ও রামদা দিয়ে কুপিয়ে আহত করা হয়।”

হাসপাতালে ভর্তির পর তাকে আইসিইউতে রাখা হয় জানিয়ে দেওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন বলেন, সোমবার সকালে সেখানে তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারে হস্তান্তরের ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। বিকেলে দাফন শেষে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হবে বলে জানান ওসি আলম।

এর আগে রোববার ভোটের দিন রাজশাহী-১ আসনে তানোর উপজেলার মোহাম্মদপুর উচ্চবিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আওয়ামী লীগ নেতা মোদাচ্ছের আলীকে (৪০) পিটিয়ে হত্যা করা হয়। আর রাজশাহী-৩ আসনের পাকুড়িয়ে ভোটকেন্দ্রে আওয়ামী লীগ কর্মী মেরাজুল ইসলাকে (৩০) কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

রাজশাহীসহ সব নিয়ে ভোটের সংঘাতে নিহতের সংখ্যা দাঁড়াল ১৮ জনে।

কোন নির্বাচনে
কোন আসনে কার অবস্থান কী