পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

চাপ অনুভব না করলে তো মানুষ থাকব না: ফিঞ্চ

  • দুবাই থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-11-13 22:10:34 BdST

bdnews24

ম্যাচের শেষ পর্যায়ে টানটান উত্তেজনার মুহূর্তে দুই দলের সমর্থকদের থেকে শুরু করে খেলোয়াড়রাও অনুভব করেন প্রবল চাপ। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররাও কি তা অনুভব করেন? তাদের শরীরী ভাষা কিংবা হাবভাবে সেটা খুব বেশি ফুটে না উঠলেও অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ বললেন, অন্যদের মতো তারাও চাপ অনুভব করেন।

চাপ সামাল দেওয়ার সামর্থ্য অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারদের অসাধারণ। হেরে যাওয়ার আগ পর্যন্ত হাল ছাড়তে জানে না তারা। ইস্পাত দৃঢ় নার্ভের জন্য বেশ পরিচিত দলটি। সেমি-ফাইনালেই যেমন পাকিস্তানের বিপক্ষে কঠিন সময়ে স্নায়ু চাপকে জয় করে পা রেখেছে ফাইনালে।

টানটান উত্তেজনার সেই ম্যাচে শেষ ৫ ওভারে তাদের প্রয়োজন ছিল ৬২ রান। ক্রিজে বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যানদের সবশেষ জুটি। তারপরও দল কতটা চাপে ছিল, বোঝা যায়নি দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাটিং কিংবা সীমানা দড়ির পাশে বসে থাকা ক্রিকেটারদের দেখে। মার্কাস স্টয়নিস ও ম্যাথু ওয়েডের বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে ৪ ওভারেই ওই কঠিন সমীকরণ মিলিয়ে ফেলে অস্ট্রেলিয়া।

ফাইনালে রোববার নিউ জিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে তারা। আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে ফিঞ্চ বলেন, তারাও সাধারণ মানুষ, স্নায়ু চাপ অনুভব করেন তারাও।

“ম্যাচের নখ কামড়ানো উত্তেজনার মুহূর্তে কি অস্ট্রেলিয়াও চাপ অনুভব করে? হ্যাঁ অবশ্যই! কোনো সন্দেহ নেই, কিছু স্নায়ু চাপের মুহূর্ত থাকেই। যদি এমনটা না হয় তাহলে আমরা আর মানুষ থাকব না। (পাকিস্তানের বিপক্ষে) খু্ব চাপের ম্যাচ ছিল। সত্যি বলতে, আমরা সেই সময়ে (স্নায়ু চাপের) শেষ পর্যায়ে ছিলাম এবং এটা অবশ্য ভীষণ রোমাঞ্চকর।”