পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

১৮ জেলায় নারী ভোটার বেশি

  • মঈনুল হক চৌধুরী, জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-07-29 11:07:33 BdST

bdnews24
ইউপি নির্বাচনে বরগুনার একটি কেন্দ্রে নারী ভোটারদের লাইন, এই জেলাটিতে নারী ভোটারের সংখ্যা বেশি (ফাইল ছবি)

বাংলাদেশের মোট ভোটারের অনুপাত কাছাকাছি হলেও সংখ্যায় ১৮ জেলায় এগিয়ে নারীরা। বাকি ৪৬ জেলায় দেশের মোট জনসংখ্যার মতোই পুরুষ ভোটার বেশি।

প্রতিবছর ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় নারী ভোটারের অন্তর্ভূক্তি কম হওয়ায় উদ্বেগ রয়েছে নির্বাচন কমিশনের। এবারের হালনাগাদে পিছিয়ে থাকা জেলাগুলোকে বেশি নজর রাখছে সাংবিধানিক সংস্থাটি।

ইসির অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “হালনাগাদের সময় নারী ভোটাররা নানা কারণে অনাগ্রহ দেখায়। তা চিহ্নিত করে এবার বিশেষ উদ্যোগ রাখছি আমরা। হালনাগাদে পুরুষের চেয়ে নারী কম হলেও সার্বিকভাবে মোট ভোটারের কাছাকাছি অবস্থানে রয়েছি।”

সর্বশেষ হালনাগাদে পুরুষ ভোটারের চেয়ে নারী ভোটার প্রায় ৬ শতাংশ কম। হালনাগাদের পর নারী-পুরুষের ব্যবধানও কমে আসবে বলে মনে করছেন ইসি কর্মকর্তারা।

মোখলেসুর  জানান, জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের তথ্য অনুযায়ী- ১২ জুলাই পর্যন্ত দেশের মোট ভোটার রয়েছে ১০ কোটি ১৬ লাখ ৮১ হাজার ৪৭৫ জন। এরমধ্যে ৫ কোটি ১৩ লাখ ৮৩ হাজার ৪৬৮ জন পুরুষ এবং ৫ কোটি ২ লাখ ৯৮ হাজার ৭ জন নারী।

মোট ভোটারের মধ্যে অনুপাতে পুরুষ ৫০.৫৪ শতাংশ ও নারী ৪৯.৪৬ শতাংশ।

পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারী পর্যন্ত দেশের মোট জনসংখ্যা ১৬ কোটি ১৭ লাখ ৫০ হাজার। এর মধ্যে ৮ কোটি ১০ লাখ পুরুষ আর ৮ কোটি ৭ লাখ ৫০ হাজার নারী।

ইসি কর্মকর্তা মোখলেসুর বলেন, ৬৪ জেলার ভোটার সংখ্যার তারতম্যের বিষয়টি পর্যালোচনা করা হয়েছে। মহানগরীগুলোতে নারী ভোটারের সংখ্যা অপেক্ষাকৃত কম; এজন্যে ঢাকা ও চট্টগ্রামে জোর তৎপরতা থাকছে। পাশাপাশি চিহ্নিত আরও জেলাকেও ‘টার্গেটে’ রাখা হয়েছে।

২৫ জুলাই থেকে ৯ অগাস্ট পর্যন্ত দেশজুড়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ চলবে।

পুরুষ সবচেয়ে বেশি ঢাকায়, নারী টাঙ্গাইলে

মোট ভোটারের মধ্যে নারীর চেয়ে পুরুষ ভোটার বেশি রয়েছে ১০ লাখ ৮৫ হাজার ৪৬১ জন।

৬৪ জেলার ভোটার সংখ্যায় নারী-পুরুষ ভোটার ব্যবধানে সবচেয়ে বেশি রয়েছে ঢাকায়। এ জেলায় নারীর চেয়ে পুরুষ ভোটার ৩ লাখ ৩ হাজার ৪১৮ বেশি। চট্টগ্রাম জেলায় পুরুষ ভোটার বেশি ১ লাখ ৮৮ হাজার ১৭৭ জন, যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

১৮ জেলায় এগিয়ে থাকা নারী ভোটারের মধ্যে টাঙ্গাইলে ব্যবধান সবচেয়ে বেশি, ৪৭ হাজার ৭৯৫ জন। আর কম ব্যবধান চুয়াডাঙ্গায়, ৭১ জন।

নারী ভোটার এগিয়ে যেসব জেলায়

বরগুনা: ৭ হাজার ৯০৫ জন।

বগুড়া: ২০ হাজার ১৯৩ জন।

চুয়াডাঙ্গা: ৭১ জন।

গাইবান্ধা: ৩৮ হাজার ৫৮৫ জন।

হবিগঞ্জ: ৩ হাজার ৪৭৬ জন।

জয়পুরহাট: ৩ হাজার ৮৬২ জন।

জামালপুর: ১০ হাজার ৩৫ জন।

কুড়িগ্রাম: ২২ হাজার ৭১৭ জন।

লালমনিরহাট: ৫৭৮ জন।

মানিকগঞ্জ: ৬৫৭ জন।

মেহেরপুর: ৫ হাজার ২৭ জন।

নওগাঁ: ৬ হাজার ৬৬৭ জন।

নড়াইল: ৩ হাজার ৭৫৮ জন।।

পটুয়াখালী: ৬৮৭ জন।

রাজশাহী: ১ হাজার ৮৯ জন।

রংপুর: ৭ হাজার ৯০১ জন।

শেরপুর: ৭ হাজার ২৮৩ জন।

টাঙ্গাইল: ৪৭ হাজার ৭৯৫ জন।

পুরুষ ভোটার এগিয়ে যেসব জেলায়

বাগেরহাট: ৫ হাজার ২২২ জন।

বান্দরবান: ১০ হাজার ৮৩৬ জন।

বরিশাল: ৮ হাজার ৯৩৩ জন।

ভোলা: ২৩ হাজার ৭৯০ জন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ২০ হাজার ১১৭ জন।

চাঁদপুর: ৩০ হাজার ৮৯০ জন।

চট্টগ্রাম: ১ লাখ ৮৮ হাজার ১৭৭ জন।

কুমিল্লা: ২৮ হাজচার ৮৯৫ জন।

কক্সবাজার: ৪৬ হাজার ২২৮ জন।

ঢাকা: ৩ লাখ ৩ হাজার ৪১৮ জন।

দিনাজপুর: ১৩ হাজার ৫৩৯ জন।

ফরিদপুর: ৭ হাজার ৯৬৯ জন।

ফেনী: ২১ হাজার ৪৬৩ জন।

গাজীপুর: ২৩ হাজার ৪৮৯ জন।

গোপালগঞ্জ: ৬ হাজার ১৪৪ জন।

যশোর: ১২ হাজার ৯৯৯ জন।

ঝালকাঠী: ১ হাজার ৫২৫ জন।

ঝিনাইদহ: ৬ হাজার ২শ’ জন।

খাগড়াছড়ি: ১৩ হাজার ১৫৩ জন।

খুলনা: ৮ হাজার ৯৬১ জন।

কিশোরগঞ্জ: ২২ হাজার ৫৯ জন।

কুষ্টিয়া: ২৮১ জন।

লক্ষ্মীপুর: ১১ হাজার ৬৪২ জন।

মাদারীপুর: ২৩ হাজার ৫৮৩ জন।

মাগুরা: ৯২১ জন।

মৌলভীবাজার: ৮ হাজার ৯৪৯ জন।

মুন্সীগঞ্জ: ৩৪ হাজার ৬৪৬ জন।

ময়মনসিংহ: ৪৬ হাজার ৯৮৭ জন।

নারায়ণগঞ্জ: ৪১ হাজার ৬৮৩ জন।

নরসিংদী: ৩ হাজার ৯৬১ জন।

নাটোর ২৮৩ জন।

চাপাইনবাবগঞ্জ: ৪ হাজার ৬০১ জন।

নেত্রকোণা: ১৫ হাজার ৫৩৯ জন।

নীলফামারী: ৮ হাজার ২৭৪ জন।

নোয়াখালী: ৪০ হাজার ১১৭ জন।

পাবনা: ২৩ হাজার ২৬০ জন।

পঞ্চগড়: ৩ হাজার ৪০৬ জন।

পিরোজপুর: ৪ হাজার ৪৮৪ জন।

রাজবাড়ী: ১০ হাজার ১৭ জন।

রাঙামাটি: ২৪ হাজার ৯৯৯ জন।

শরীয়তপুর: ২২ হাজার ৫১১ জন।

সাতক্ষীরা: ৩ হাজার ৬০৯ জন।

সিরাজগঞ্জ: ২৪ হাজার ৫৩৮ জন।

সুনামগঞ্জ: ৮ হাজার ৫৭৯ জন।

সিলেট: ৪৯ হাজার ৬৫৫ জন।

ঠাকুরগাঁও: ১৩ হাজার ২১৫ জন।