২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

জাফর ইকবালকে ঢাকায় আনা হয়েছে

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2018-03-03 20:15:50 BdST

সিলেটে হামলায় আহত অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আনা হয়েছে।

শনিবার বিকালে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এক অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থী ও পুলিশের উপস্থিতিতে জাফর ইকবালের উপর হামলা হয়। এরপর সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিসার পর এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়।

রাত ১২টায় জাফর ইকবালকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ রাশিদুল হাসান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জাফর ইকবালকে ঢাকায় আনা হয়েছে বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক এহতেশামুল হক দুলাল জানিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ফেস্টিভাল চলছিল ক্যাম্পাসের মুক্তমঞ্চে। ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক জাফর ইকবাল।

সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল।

সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল।

প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা জানান, অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে ছুরি নিয়ে এক তরুণ বিচারকের আসনে বসে থাকা জাফর ইকবালকে পেছন থেকে হামলা করে।

ওসমানি মেডিকেলের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাহবুবুল হক সাংবাদিকদের বলেন, “জাফর ইকবালের মাথায় চারটি আঘাত করা হয়েছে। এগুলো রডের আঘাত বলে মনে হচ্ছে। এছাড়া তার বাঁ হাত ও পিঠে ছুরিকাঘাতের জখম রয়েছে।”

জাফর ইকবালের শরীরে ২৫ থেকে ২৬টি সেলাই পড়েছে বলে জানিয়ে তিনি বলেন, “এখন উনি শঙ্কামুক্ত।”

এদিকে হামলার পরপরই হামলাকারীকে ধরে পিটুনি দেয় শিক্ষার্থীরা। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন পুলিশ-র‌্যাব কর্মকর্তারা।

ফয়জুর রহমান ওরফে ফয়জুল নামের ওই শিক্ষার্থী শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সংলগ্ন কুমারগাঁওয়ের শেখপাড়ায় পরিবারের সঙ্গে থাকেন। তিনি মাদ্রাসাছাত্র বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে।