২৩ মার্চ ২০১৯, ৯ চৈত্র ১৪২৫

ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলা, বেঁচে গেলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-03-15 08:58:51 BdST

bdnews24

নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে জুমার নামাজের সময় গোলাগুলির ঘটনায় অল্পের জন্য বেঁচে গেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের কয়েকজন খেলোয়াড়।

বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার খালেদ মাসুদ জানিয়েছেন, দলের সদস্যরা সবাই নিরাপদে হোটেলে ফিরেছেন।

শুক্রবার দুপুরে গোলাগুলির ওই ঘটনার পর বাংলাদেশ-নিউ জিল্যান্ড তৃতীয় টেস্টটি বাতিল করা হয়েছে। শনিবার ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে ওই ম্যাচ শুরু হওয়ার কথা ছিল। 

খালেদ মাসুদ জানান, ম্যাচের আগে শুক্রবার সকালে ওই মাঠে অনুশীলন করেন বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা। সেখান থেকে তাদের কয়েকজন কাছের ওই মসজিদে গিয়েছিলেন জুমার নামাজ পড়ত।

“তবে কোনো বিপদ হয়নি। সবাই নিরাপদে ফিরে এসেছে।”

নিউজিল্যান্ডের  সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, হ্যাগলি পার্কের পাশে ডিনস এভিনিউয়ের ওই মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজ পড়তে এসেছিলেন কয়েকশ মুসলমান।

মিলিটারি ধাঁচের ক্যামোফ্লাজড পোশাক পরিহিত এক ব্যক্তি অটোমেটিক রাইফেল হাতে ওই মসজিদে ঢোকে এবং প্রায় ২০ মিনিট ধরে গুলি চালায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা বিবিসিকে বলেছেন।  

কাছাকাছি সময়ে ক্রাইস্টচার্চের আরেকটি মসজিদে হামলার ঘটনা ঘটে। স্থানীয় পুলিশ ‘বেশ কয়েকজন’ হতাহতের খবর দিলেও নিউ জিল্যান্ড হেরাল্ডের প্রতিবেদনে নিহতের সংখ্যা অন্তত ২৭ বলে জানানো হয়েছে। 

নিউ জিল্যান্ড হেরাল্ডের খবরে বলা হয়েছে, আল নূরে যখন গোলাগুলি শুরু হয়, তার পরপরই মসজিদে পৌঁছেছিলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। তারা দ্রুত সেখান থেকে সরে যান।

ইএসপিএনক্রিকইনফোর প্রতিবেদক মোহাম্মদ ইসাম একটি ভিডিও টুইট করেছেন, যেখানে হ্যাগলি পার্ক এলাকা দিয়ে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের ফিরতে দেখা গেছে।

বাংলাদেশ দলের ব্যাটসমান তামিম ইকবাল এক টুইটে লিখেছেন, তারা সবাই নিরাপদে আছেন, তবে অভিজ্ঞতটা ছিল আতঙ্ক জাগানিয়া।

 

বাংলাদেশ দলের পারফরমেন্স ও স্ট্র্যাটেজিক অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাস চন্দ্রশেখরও তার অভিজ্ঞতা জানিয়েছেন টুইটে।