২৫ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫

ভোটে জেতার পর লাগাতার মশা নিধনের মেশিন চলে আতিকুলের বাড়িতে

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-03-15 20:01:22 BdST

bdnews24

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপনির্বাচনে জয়ের পর আতিকুল ইসলামের বাড়িতে লাগাতার মশা নিধনের ওষুধ ছিটানো হয় জানিয়ে ‘লোক দেখানো’ কাজের বিষয়ে পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের সতর্ক করেছেন তিনি।

শুক্রবার ডিএনসিসির মশক নিধন ও পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম বিষয়ক মতবিনিময় সভায় নতুন এই মেয়র বলেন, তিনি কথা ও আড়ম্বরে নয়, কাজে বিশ্বাসী। 

আকস্মিক বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনের ঘোষণা দিয়ে কাজে ফাঁকির প্রমাণ পেলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচনে জয়ী হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

মেয়রের দায়িত্ব নেওয়ার পর শুক্রবারই প্রথম সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের সঙ্গে বসলেন তিনি।

নগরবাসীর জীবন-যাপন নির্বিঘ্ন করতে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার তাগাদা দিয়ে ‘লোক দেখানো’ কাজের বিষয়ে সতর্ক করেন তিনি।

সিটি করপোরেশনের কর্মীদের নেতিবাচক এই প্রবণতা থেকে বেরিয়ে আসার তাগাদা দিয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, “আমি যেদিন নির্বাচনে জিতলাম সেদিন আমার বাউন্ডারি ওয়ালে শুধু ফগিং মেশিন মারা হচ্ছে। আমার মেয়ে বলে, ‘বাবা এটা স্টপ করো, আশপাশের লোক ভালো বলবে না’।

“লোক দেখানো ফগিং মেশিন কিন্তু মারা চলবে না। লোক দেখানো ওষুধ ছিটানো চলবে না। সব জায়গায় কাজ করতে হবে। আমি কাজে বিশ্বাসী, দেখানোতে বিশ্বাসী না।”

আতিকুল ইসলামের এই কথার সমর্থন মেলে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভুক্ত নিউ ইস্কাটন এলাকার এক বাসিন্দার বক্তব্যে। বিগত সরকারের একজন মন্ত্রীর বাসভবন ওই এলাকায় হওয়ায় গত কয়েক বছর সেখানে নিয়মিত মশার ওষুধ ছিটানো হয়। এবার আর তিনি মন্ত্রী নেই, ওই এলাকায়ও ভয়ানক হয়েছে মশার উপদ্রব।

“মন্ত্রী বাদ পড়ায় আমরাও মশার ওষুধ থেকে বাদ পড়েছি,” বলেন আজিজুল নামের ওই বাসিন্দা।  

আগামী সাত দিনের মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকার নালা-নর্দমা পরিষ্কার করার নির্দেশ দেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, মশক নিধনের পাশাপাশি নালাগুলোও পরিচ্ছন্ন করতে হবে।

“আমরা মশক নিধনের কাজ করব। কিন্তু মশক নিধনের সঙ্গে জমে থাকা সব ড্রেন, কালভার্টসহ যেখানে পানি জমে আছে তা আগামী সাতদিনের মধ্যে পরিষ্কার করতে হবে। পানি চলাচলযোগ্য করতে হবে। কারণ বর্ষাকাল আসছে এখন ড্রেনগুলো পরিচ্ছন্ন করতে হবে।”

যার যার দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করতে কর্মীদের নির্দেশ দিয়ে মেয়র বলেন, “পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের সমস্যা সমাধান করা হবে। কাজে ফাঁকি দিলে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে। আমি কাজ ভালোবাসি। আমি ইটিং, সিটিং, মিটিং রেজাল্ট ইজ নাথিং ভালোবাসি না। আমি অ্যাকশন ভালোবাসি, মিটিং ত্বরান্বিত করতে ভালোবাসি।

“কাজে ফাঁকি দেওয়া যাবে না। আমি ফাঁকি পছন্দ করি না, দুর্নীতি পছন্দ করি না। আমি কিন্তু কাল সকালে যে কোনো জায়গায় চলে যাব। যারা কাজ করছেন তাদের বলছি, আমি কিন্তু যে কোনো এলাকায় যে কোনো সময় চলে যাব। যদি কোনো নিয়মের ব্যত্যয় ঘটে তাহলে কঠোরতর ব্যবস্থা নেব।”

সবাই মিলে ঢাকাকে মশামুক্ত করার উপর গুরুত্বারোপ করেন আতিকুল ইসলাম। এজন্য ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করে দেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি।

মেয়র বলেন, সবাই একসঙ্গে কাজ করলে ডিএনসিসিকে মশামুক্ত করা সম্ভব।

“আসুন আমরা একটি ক্র্যাশ প্রোগ্রাম করি। মশক নিধন কর্মী যারা আছেন তাদের প্রতি আহ্বান, আসুন আমরা দেখিয়ে দিই যে আমরা পারি। মশক নিধন করতে চাই। আমি বলতে চাই, আমাদের সিটি করপোরেশনের যা কিছু আছে তা নিয়ে আমরা মশক নিধন করব ইনশাল্লাহ।”

মতবিনিময় সভায় সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হাই, ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল মান্নান, ডা. জিন্নাত আলী বক্তব্য রাখেন।