১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৮ কার্তিক ১৪২৬

২৪ ঘণ্টার কর্মবিরতিতে উবার চালকরা

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-10-13 23:09:15 BdST

bdnews24
মানববন্ধনের মতো কর্মসূচি পালনের পর এখন কর্মবিরতিতে যাচ্ছেন উবারচালকরা

নয় দফা দাবিতে রোববার মধ্যরাত থেকে ২৪ ঘণ্টা ধর্মঘটে নেমেছে বাংলাদেশে উবারের চালকদের দুটি সংগঠন।

ঢাকা রাইড শেয়ারিং ড্রাইভারস ইউনিয়ন এবং বাংলাদেশে রাইড শেয়ারিং ড্রাইভার্স অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, উবারের ‘নানা অনিয়মের’ প্রতিবাদে এবং চালকদের ন্যায্য দাবি আদায়ে তাদের সদস্যরা রোববার মধ্যরাত থেকে গাড়ি চালানো বন্ধ রেখেছেন। 

বাংলাদেশে রাইড শেয়ারিং ড্রাইভারস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শুভ আহমেদ রোববার রাতে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “উবারের অ্যাপ ব্যবহার করে চলাচলকারী মোটরকার ও মোটরসাইকেল এ কর্মসূচির আওতায় থাকবে। আমরা চালকদের আহ্বান জানাচ্ছি এ দাবির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করার জন্য।

“আমরা ছয় মাস ধরে এই দাবি করে আসছি। এসব দাবি ঢাকায় চলাচলকারী উবারচালকের দাবি। আশা করছি, সবাই আমাদের সঙ্গে যোগ দেবেন।”

শুভ আহমেদ বলেন, সোমবার রাত ১২টা পর্যন্ত তাদের এই ধর্মঘট চলবে। এ কর্মসূচির পর ওদাবি না মানলে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

উবার চালকদের দাবিগুলো হলো- ট্রিপ শুরু করার পর থেকে ট্রিপ শেষ করা পর্যন্ত কিলোমিটার ও মিনিট হিসাব করে ভাড়া দিতে হবে, উবারের কমিশন ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১২ শতাংশ করতে হবে, গ্যাসের দাম বাড়ার কারণে ভাড়ার হার বাড়াতে হবে, ডেস্টিনেশন অপশনে ডেস্টিনেশনের আশপাশে ট্রিপ দিতে হবে, চালকদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে, যাত্রীদের দ্বারা গাড়ির কোনো ক্ষতি হলে তার ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করতে হবে, যাত্রীদের করা অভিযোগ যাচাই না করে চালকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না, যাত্রীর অ্যাকাউন্টে যাত্রীর ছবি থাকা বাধ্যতামূলক করতে হবে, যাত্রীকে লোকেশন সম্পর্কে প্রাথমিক প্রশিক্ষণ দিতে হবে, চালকের সঙ্গে যাত্রীর সংযোগ দূরত্ব সর্বোচ্চ দুই কিলোমিটার করতে হবে এবং দৈনিক ১২ ঘণ্টার বেশি উবারে অনলাইন না থাকার নিয়ম চালু করতে হবে।

দাবিগুলো নিয়ে উবারের সঙ্গে কয়েক দফা আলোচনা হলেও কোনো সমাধান হয়নি বলে জানান ঢাকা রাইড শেয়ারিং ড্রাইভারস ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমেদ।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, “আমরা এর আগে দুই দফা উবারের ঢাকা অফিসে গিয়েছিলাম। উত্তরায় তাদের অফিসের সামনে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছি। কিন্তু তারা কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। তারা বলেছে, উবারের সব সিদ্ধান্ত ভারত থেকে আসে, এখানে তাদের পক্ষে কিছুই করার নেই।”

এই ধর্মঘটের বিষয়ে এক বিবৃতিতে উবারের একজন মুখপাত্র বলেন, কিছু চালকের জন্য যে জটিলতা তৈরি হয়েছে তা দুঃখজনক। 

“যাত্রীরা যাতে সহজে, স্বচ্ছন্দ্যে ঢাকায় চলাফেরা করতে পারেন, আমাদের চালকদের একটি স্থিতিশীল আয় যেন হয়, সেজন্য সেবা চালিয়ে যেতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

চালকদের সমস্যা ও উদ্বেগের বিষয়গুলো শোনা এবং সমাধানের জন্য সেবাকেন্দ্র ও ইন-অ্যাপ ফিডব্যাকের ব্যবস্থা রয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

২০১৬ সালে বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করে উবার। যানজট আর গণপরিবহনে নৈরাজ্যের শহর ঢাকায় মোবাইল অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সেবা দ্রুত জনপ্রিয়তা পায়।

এছাড়াও পাঠাও, ওভাই, পিকমি, স্যাম, সহজের মতো আরও কয়েকটি রাইড শেয়ারিং কোম্পানি এখন চালু রয়েছে।