ছুটি বাড়ছে, আভাস দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-03-31 11:44:38 BdST

দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ নিয়ন্ত্রণে ঘোষিত সাধারণ ছুটির মেয়াদ ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হতে পারে বলে আভাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মহামারী প্রতিরোধে মঙ্গলবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জেলা প্রশাসকসহ মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বিভিন্ন নির্দেশনা দিতে গিয়ে ছুটির বিষয়েও কথা বলেন সরকারপ্রধান।

তিনি বলেন, “আমরা ছুটি দিয়েছিলাম, হয়তো আমাদের আরও কয়েকদিন একটু বাড়াতে হতে পারে। কারণ যারা অনেকে গ্রামে চলে গেছেন, সেখানে কোনো রকম আবার এই রোগের প্রার্দুভাব দেখা না দেয়, সেই সময়টা হিসেব করে। আমরা ১০/ ১২ দিনের ছুটি দিয়েছিলাম। এটা ১৪ দিন পর্যন্ত হতে পারে।”

ছবি: সাইফুল ইসলাম কল্লোল

ছবি: সাইফুল ইসলাম কল্লোল

দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাড়তে থাকায় ২৬ মার্চ থেকে দেশে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়। সেই সঙ্গে সড়ক, নৌ, আকাশ পথে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ রেখে সবাইকে বাড়িতে থাকতে বলা হয়।

এর আগে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার ১৭ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। ১ এপ্রিল থেকে শুরু হতে যাওয়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষাও স্থগিত করা হয়।

সাধারণ ছুটির ঘোষণা আসার পর ২৪ মার্চ আরেক ঘোষণায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটির মেয়াদ ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের ২৬ মার্চ থেকে ছুটি ছিল। কোয়ারেন্টিন (১৪ দিনের) কত তারিখ পর্যন্ত হবে? ৯ তারিখ পর্যন্ত। তাহলে বোধহয় আমাদের এই ছুটিটা সীমিত আকারে বাড়াতে হবে।”

ছবি: সাইফুল ইসলাম কল্লোল

ছবি: সাইফুল ইসলাম কল্লোল

ছুটি বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থাও সীমিত আকারে চালু রাখার কথা বলেন শেখ হাসিনা।

“যোগাযোগ ব্যবস্থাটা চালু করার জন্য সেখানে আমরা চিন্তাভাবনা করেই করব, কোনো কোনো ক্ষেত্রে আমরা সেখানে ছাড় দেব।”

এই অবরুদ্ধ দশার মধ্যে নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী মানুষ যেন খাদ্য সঙ্কটে না পড়ে সে বিষয়ে ২৫ মার্চ রাতে জাতির উদ্দেশে ভাষণে নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী।  

তিনি বলেন, নিম্ন আয়ের ব্যক্তিদের ‘ঘরে-ফেরা’ কর্মসূচির আওতায় নিজ নিজ গ্রামে সহায়তা করা হবে।