পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

করোনাভাইরাস নিয়ে বিদেশ থেকে গুজব ছড়ালেও ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-04-09 15:25:59 BdST

bdnews24

মহামারী করোনাভাইরাস নিয়ে দেশ বা বিদেশ যেখানে বসেই কোনো বাংলাদেশি গুজব ছাড়াক না কেন, তাকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের জরুরি সেবাদানকারী সংস্থাগুলোর প্রধানদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে বৈঠক শেষে এক ভিডিও বার্তায় তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা লক্ষ্য করেছি, দেশে যখনই কোনো বিশেষ পরিস্থিতি তৈরি হয়, কোনো দুর্যোগ পরিস্থিতি তৈরি হয়, তখন কিছু মানুষ গুজব সৃষ্টি করে, গুজব তৈরি করে।

“বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে জনগণের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করার অপচেষ্টা চালায়। একই সাথে একটি মহল এ ধরনের গুজব তৈরি করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য অপচেষ্টায় লিপ্ত থাকে।”

এসব বিষয় সরকার গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে জানিয়ে হাছান বলেন, “ইতোমধ্যে অনেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। … যারা এই কাজগুলো করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সরকার বদ্ধপরিকর।

“তথ্য অধিদপ্তর এ বিষয়ে নজর রাখছে। মন্ত্রণালয়ে যে গুজব নিয়ন্ত্রণ সেল আছে সেই সেলের কর্মকর্তারাও এখানে আছেন, আমরা এ নিয়ে আলোচনা করেছি। তাই গুজব তৈরি করার চেষ্টা দয়া করে করবেন না।”

তথ্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা দেখতে পাচ্ছি বিদেশ থেকেও অনেক ধরনের গুজব তৈরি করা হচ্ছে। বিদেশে যে সমস্ত বাংলাদেশি নানা কারণে আছেন… তাদের মধ্যে কেউ কেউ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে দেশের মধ্যে আতঙ্ক তৈরির অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

“তারা হয়ত মনে করছেন বিদেশে আছেন বিধায় ধরা-ছোঁয়ার বাইরে। যেহেতু তারা বাংলাদেশের নাগরিক, সুতরাং বাংলাদেশের নাগরিক তিনি যেখান থেকেই অপকর্ম করুক না কেন, সরকার আইনগতভাবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।”

কাটতি বাড়াতে গণমাধ্যমে বিভ্রান্তিকর তথ্য পরিবেশন না করারও আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “আমি সব সংবাদ মাধ্যমের সম্মানিত কর্মকর্তা, সাংবাদিক ভাই-বোনদের অনুরোধ জানাব, আমাদের লক্ষ্য হবে জনগণ যেন সঠিক সংবাদ ও সঠিক তথ্য পায়। সংবাদের কাটতির জন্য আমরা কেউ যেন জনগণের মধ্যে আতঙ্ক বা বিভ্রান্তি তৈরি হয় এমন সংবাদ পরিবেশন না করি।”

প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও কাজ চালিয়ে যাওয়ায় গণমাধ্যমকর্মীদের ধন্যবাদ জানান তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “আজকে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, গণযোগাযোগ অধিদপ্তর, তথ্য অধিদপ্তরের আঞ্চলিক পর্যায়ের কর্মকর্তারা নিজ নিজ অফিসে দায়িত্ব পালন করবেন।

“সঠিক সংবাদ পরিবেশন করা এবং করোনাভাইরাসের কারণে এই দুর্যোগের পরিস্থিতিতে জনগণকে সঠিক তথ্য দেওয়া, একই সাথে মানুষে যাতে সচেতন হয় এবং সরকারি নির্দেশনা মেনে তারা যাতে ঘরে থাকে এ বিষয়গুলো তদারক করা তাদের দায়িত্ব।”

কেবল নেটওয়ার্ক পরিচালনাকারীদের ধন্যবাদ জানিয়ে হাছান বলেন, এখন মানুষ টেলিভিশন দেখছে এবং টেলিভিশনের মাধ্যমে তথ্য পাচ্ছে। কেবল নেটওয়ার্ক যাতে কোনো জায়গায় ব্যত্যয় না ঘটে সেদিকে নজর রাখবেন। কোনো জায়গায় ব্যত্যয় ঘটলে প্রশাসনের সহায়তা গ্রহণ করবেন।