ঢাকায় ঢোকা-বের হওয়া বন্ধ থাকবে: আইজিপি

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-17 21:33:15 BdST

bdnews24
ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ের কুচিয়ামোড়ায় যাত্রীবাহী যানবাহনকে ঢাকায় ফেরাচ্ছে পুলিশ।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ঈদের সময় অন্য বারের মতো বাড়ি যাওয়া ঠেকাতে পুলিশ কঠোর থাকবে বলে জানিয়েছেন আইজিপি বেনজীর আহমেদ।

তিনি বলেছেন, “ছুটিতে অনেকেই গ্রামের বাড়ি যাচ্ছেন। তা ঠিক হবে না। এটি কোনোভাবেই হতে দেওয়া যাবে না।

“প্রধানমন্ত্রী জনগণের সার্বিক কল্যাণের জন্য যে সব নির্দেশনা দিয়েছেন, তা সকলকে যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।”

করোনাভাইরাসের সবচেয়ে বেশি রোগী এখন আছে ঢাকায়; তাই ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে এবার ঈদে যে যেখানে আছে, তাকে সেখানেই থাকার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।

তা বাস্তবায়নে রোববার সকাল থেকে মাঠে থাকা পুলিশকে সক্রিয় দেখা যাচ্ছে। দক্ষিণাঞ্চলমুখী অনেককে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া থেকে ঢাকায় ফেরতও পাঠিয়েছে পুলিশ।

ঈদ পেরিয়ে ছুটি: কর্মস্থল ত্যাগে মানা, চলাচলেও কড়াকড়ি  

ঢাকায় আগমন-বহির্গমনে ফের কড়াকড়ি  

ফেরির ভিড় ঠেকাতে দক্ষিণাঞ্চলমুখীদের ঢাকায় ফেরাচ্ছে পুলিশ

পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর রোববার আড়াই ঘণ্টা ধরে মাঠ পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন। সেখানেই তিনি ঢাকাকে অবরুদ্ধ রাখার কথা বলেন।

বেনজীর বলেন, “সরকারের পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত যেন কোনোভাবেই ঢাকার বাইরে থেকে ঢাকায় এবং ঢাকা থেকে ঢাকার বাইরে কেউ যেতে না পারে। একইভাবে প্রতিটি জেলা ও মহানগরীও জনস্বার্থে কঠোরভাবে এ বিষয়টি বাস্তবায়ন করবে।”

শপিংমল ও বিপণি বিতান খোলার ক্ষেত্রে যেন স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে বলেন তিনি।

জনগণের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে গিয়ে পুলিশের যে সব সদস্য রোগাক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন, তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান আইজিপি।

এদিকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে পুলিশ সদস্যের জন্য যে নির্দেশনামালা তৈরি হয়েছে, সেই ‘এসওপি (স্ট্যান্ডিং অপারেটিং প্রসিডিওর)’ সবাইকে অনুসরণের নির্দেশনা দেন আইজিপি।

তিনি বলেন, “দেশ ও মানুষের সেবা একটি বিরল সুযোগ। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে মানুষের হৃদয়ের মণিকোঠায় স্থায়ীভাবে আসন করে নিতে হবে।”

পাশাপাশি যে কোনো প্রকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারিও দেন আইজিপি।