লকডাউনে জরুরি চলাচলে অনলাইনে মিলবে ‘পুলিশ পাস’

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-21 11:30:11 BdST

bdnews24

করোনাভাইরাস মহামারীতে চলমান লকডাউনের মধ্যে পণ্য ও সেবা পরিবহনসহ জরুরি চলাচলে শৃঙ্খলা আনতে জনসাধারণের জন্য অনলাইনে বিশেষ পাস নেওয়ার ব্যবস্থা করছে পুলিশ।

এজন্য পুলিশ সদর দপ্তরের আইসিটি উইং থেকে একটি ওয়েবসাইট (https://movementpass.police.gov.bd) খোলা হয়েছে। সেখানে নিবন্ধন ও ভেরিফিকেশনের পর প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে পাস সংগ্রহের আবেদন জমা দিতে হবে। তথ্য যাচাই-বাছাই শেষে পাস দেওয়া হবে।

জানতে চাইলে পুলিশ সদরদপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক মো. সোহেল রানা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “জরুরি পণ্য-সেবা প্রদানের কাজে পরিবহনের চলাচল সুনিশ্চিত করতে এবং সুশৃঙ্খল অবস্থায় আনতে বিশেষ পাস দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে।

“এই পাসের জন্য অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করতে হবে। দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তারা আবেদন যাচাই-বাছাই করে উপযুক্ত মনে হলে পাস দেবেন।”

মুভমেন্ট পাসের ওই ওয়েবসাইট খুললে দেখা যায় সেখানে লেখা রয়েছে,“স্বাগতম। জরুরি প্রয়োজনে আপনি এই টুলটির সাহায্যে পুলিশ এর সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে লকডাউন পরিস্থিতিতে বের হওয়ার অনুমতি নিতে পারবেন।

“আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করার পর আপনি শর্তসাপেক্ষে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য অনুমতি পাবেন। আপনাকে প্রতিবার যাতায়াতের জন্য পাস নিতে হবে, একটি পাস একবার ব্যবহারযোগ্য। যাওয়া এবং আসার জন্য আপনাকে দুইটি আলাদা পাসের আবেদন করতে হবে।”

তবে ‘এই মুহুর্তে সার্ভিসটি ডেমো পর্যায়ে রয়েছে, অতি দ্রুত চালু করা হবে’ বলে তাতে জানানো হয়েছে।

এক পুলিশ কর্মকর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পরিবহনের চলাচলে শৃঙ্খলা আনতে পদ্ধতিটি চালু হচ্ছে। এখন যেভাবে যে কোনো গাড়ি জরুরি সেবার নাম দিয়ে ঢাকা থেকে বের হচ্ছে বা ঢুকছে এবং এক জেলা থেকে অন্য জেলা যাতায়াত করছে। এতে একটি বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

“মাননীয় পুলিশের প্রধান দুই দিন আগে একটি মিটিং এই পরিস্থিতি শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে একটি অ্যাপস এর ব্যবস্থা করা যায় কি না? তখন এই বিশেষ পাসের কথা উঠে আসে।ফলে অকারণে কোনো পরিবহন চলাচল করতে পারবে না।”

গত কয়েকদিন ধরে ঢাকাসহ সারা দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলছে। সরকার কয়েক দফা ছুটি বাড়িয়ে বাসায় থাকার অনুরোধ জানালেও জনগণ নানা অজুহাতে পরিবহন নিয়ে বের হচ্ছেন এবং এক জেলা থেকে অন্য জেলা যাচ্ছেন।

সরকার পোশাক কারখানাসহ প্রয়োজনীয় প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সময় বলেছে, এক জেলা থেকে অন্য জেলা যাতায়াত করা যাবে না এবং যে যেখানে রয়েছেন সেখানেই ঈদ করবেন।

পুলিশের প্রধান বেনজীর আহমেদ মঙ্গলবার রাজারবাগে এক সংবাদ সম্মেলনে ঈদের দিন জনগণকে ঘর থেকে এবং বেড়াতে বের হতে নিষেধ করেছেন।