ঈদের দিন বৃষ্টির পূর্বাভাস নেই রাজধানীতে

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-24 00:42:29 BdST

bdnews24

ঈদের দিন ঢাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনা দেখছে না আবহাওয়া অধিদপ্তর।

তবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যে এবার ঈদ উল ফিতর উদযাপিত হবে বলে বৃষ্টি না হলেও ভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষায় ঘোরাঘুরিতে লাগাম টানতে হবে রাজধানীবাসীকে।

গেল সপ্তাহ ধরে ঘূর্ণিঝড়র আম্পানের আগে-পরে দেশের অধকিংশ জায়গায় বৃষ্টি ছিল। সেই সঙ্গে ঝড় শেষে ছিল ভারি বর্ষণও।

বুধবার রাতে বাংলাদেশে প্রবেশের পর বৃষ্টি ঝরিয়ে দুর্বল আম্পান স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়েছিল। শুক্রবার তা রাজশাহী-দিনাজপুর অঞ্চলে দুর্বল হয়ে গুরুত্বহীন হয়ে পড়ে।

শনিবার দেশের কোথাও শাওয়ালের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় আগামী সোমবার ঈদুল ফিতর উদযাপন হবে।

এ অবস্থায় ঈদের দিন নিয়ে আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, “সোমবার রাজধানীসহ দেশের অধিকাংশ এলাকায় বৃষ্টি থাকবে না। রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও বৃষ্টি হতে পারে। অন্যত্র আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকবে।”

জ্যৈষ্ঠের এ সময়ে দিনের তাপমাত্রা ১-২ ডিগ্রি সেলসিয়াস বাড়ার আভাসও দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তরের।

শনিবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল চাঁদপুরে ৩৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রোববারের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, ময়মনসিংহ ও চট্টগ্রাম বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকাসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।

ওমর ফারুক বলেন, “করোনাভাইরাস সংক্রমণের এ সময়ে ঈদ আবহাওয়া ভালো থাকলেও খোলা জায়গায় জামাত না করার পরামর্শ তো রয়েছে। বৃষ্টি না থাকলেও যেন সবাই স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলি।”

করোনাভাইরাস অতিমাত্রায় সংক্রামক বলে সব ধরনের অফিস-আদালত ও গণপরিবহন বন্ধ রাখা হয়েছে গত ২৬ মার্চ থেকে। এই সময় সবাইকে বাসায় থাকার, জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।   

মসজিদে জামাতে নামাজ পড়ার উপর দেওয়া কড়াকড়ি সম্প্রতি তুলে নেওয়া হলেও এবার রোজার ঈদের দিন ঈদগাহ বা খোলা জায়গার বদলে বাড়ির কাছে মসজিদে ঈদের নামাজ পড়তে বলেছে সরকার।

সেই সঙ্গে মসজিদে ঈদ জামাত আয়োজনের ক্ষেত্রে সুরক্ষার ব্যবস্থা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বেশ কিছু শর্ত দিয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয় বলেছে, এসব নির্দেশনা না মানলে ‘আইনগত ব্যবস্থা’ নেওয়া হবে।

সরকারের এক তথ্য বিবরণীতে বলা হয়েছে, ঈদের দিন বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

সকাল ৭টা এক ঘণ্টা পরপর চারটি এবং পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত বেলা পৌনে ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে।