রাস্তা থেকে প্রাইভেট কারে যাত্রী তুলে সর্বস্ব লুট, গ্রেপ্তার ৫

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-06-17 17:15:28 BdST

bdnews24
গাড়িতে যাত্রী তুলে সর্বস্ব লুটে নেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার ৫ জন

গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে গাড়িতে যাত্রী তুলে তাদের টাকাপয়সা ও মালামাল লুটের অভিযোগে একটি ‘দস্যু চক্রের’ ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকার গোয়েন্দা পুলিশ।

গোয়েন্দা পুলিশের উত্তরা বিভাগের বিমান বন্দর জোনাল টিম বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার সিটি ফিলিং স্টেশন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করার কথা জানিয়েছে।

গ্রেপ্তাররা হলেন- মো. মানিক মিয়া, মো. জাকির হোসেন, মো. আরিফ, মো. হযরত আলী ও মো. জাহিদ হোসেন।

তাদের মধ্যে মানিক মিয়া ওই ‘চক্রের প্রধান’ বলে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানান ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার।

তিনি বলেন, মো. আরিফুল ইসলাম নামের এক ভুক্তভোগী খিলক্ষেত থানায় মামলা করার পর ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার ভিডও এবং মোবাইল ট্র্যাক করে ওই চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তার করেন গোয়েন্দারা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আরিফুল ইসলাম গত ২০ মে রাত সাড়ে ৯টার দিকে কুড়াতলী বিআরটিসি বাস কাউন্টারের সামনে ভুলতা গাউছিয়াগামী বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। একটি সাদা প্রাইভেটকার তখন তার সামনে এসে দাঁড়ায় এবং পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে।

বাসের আশায় না থেকে আরিফুল ওই প্রাইভেটকারে ওঠেন। প্রায় ২০০ মিটার যাওয়ার পর পিছনের সিটে মাঝে বসা আরিফুলের দুই হাত দুই পাশ থেকে চেপে ধরে ‘যাত্রীবেশী দুই ডাকাত’। 

হাফিজ আক্তার বলেন, “তারা ভিকটিমকে গামছা দিয়ে বেঁধে কিল ঘুষি মারতে থাকে এবং গলায় ছুরি চেপে ধরে ভয় দেখায়। তারা ভিকটিমের মোবাইল ফোন, নগদ টাকা ও মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টের পিন কোড জোর করে ছিনিয়ে নেয়।

“রাত আনুমানিক সোয়া ১০টার দিকে তারা আরিফুলকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে গাজীপুর জেলার কালিগঞ্জ এলাকায় চোখে স্প্রে দিয়ে নামিয়ে দেয়। পরে তিনি বাসায় ফিরে খোঁজ নিয়ে দেখতে পান, ছিনতাইকারীরা তার বিকাশ নম্বরের টাকা সেন্ড মানি করে নিয়ে নিয়েছে।"

ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, ঢাকা মহানগরীর খিলক্ষেত, কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা, ভুলতা-গাউছিয়া ও এয়ারপোর্ট থেকে ময়মনসিংহ, শেরপুরে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কৌশলে যাত্রী তুলত ওই চক্রটি।

“পরে যাত্রীর গলায় ইলেকট্রিক তার পেঁচিয়ে, গামছা দিয়ে চোখ ও হাত বেঁধে, মুখে টেপ লাগিয়ে, গলায় ছুরি ধরে মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে যাত্রীর সর্বস্ব লুট করে নিয়ে তাকে নির্জন স্থানে ফেলে দেওয়ার কথা তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।”

গ্রেপ্তারের সময় তাদের কাছ থেকে একটি প্রাইভেটকার, একটি মোবাইল ফোন, একটি ছুরি, একটি গামছা, একটি টেপ, লাল-কালো ইলেকট্রিক তার ও একটি স্ত্রু-ড্রাইভার জব্দ করার কথা জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

খিলক্ষেত থানায় করা মামলায় তাদের আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে বলে গোয়েন্দা পুলিশ জানিয়েছে।