পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

জাল টাকা: বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় পাপিয়ার বিচার শুরু

  • আদালত প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-14 11:08:05 BdST

জাল টাকা উদ্ধারের ঘটনায় যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরীসহ চারজনের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় অভিযোগ গঠন করেছে আদালত।

এর মধ্য দিয়ে এ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে বিচার শুরুর আদেশ হল। মামলার অপর দুই আসামি হলেন- পাপিয়ার সহযোগী সাব্বির খন্দকার ও শেখ তায়িবা নূর।

এ মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা দুই ভাগে অভিযোগপত্র দিয়েছিলেন। এর মধ্যে গত ১৩ অক্টোবর ঢাকা অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম হাসিবুল হক চার আসামির বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির একটি ধারায় অভিযোগ গঠন করেন।

আর বুধবার ঢাকার মহানগর বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-৬ এর বিচারক ফাতেমা ফেরদৌস বিশেষ ক্ষমতা আইনের ধারায় অভিযোগ গঠন করে চার আসামির বিচার শুরুর আদেশ দেন।

অভিযোগ গঠনের শুনানির আগে আসামিদের আদালতে হাজির করা হয়। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা তাদের অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আবেদন করা হয়।

উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে বিচারক আসামিদের কাছে জানতে চান, তারা দোষী না নির্দোষ। আসামিরা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায় বিচার প্রার্থনা করেন।

পরে আদালত আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে এবং আগামী ২১ নভেম্বর সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করে দেয় বলে আসামিপক্ষের আইনজীবী শাখাওয়াত উল্যাহ ভূঁইয়া জানান।

গত বছর ২৩ ফেব্রুয়ারি বিমানবন্দর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলাটি দায়ের করেন র‍্যাব-১ এর সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার সফিকুল ইসলাম।

ওই বছর ২৯ নভেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‍্যাব-১ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. নজমুল হক চার আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানকে ২০২০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

স্বামীর সঙ্গে শামীমা নূর পাপিয়া। ছবি: ফেইসবুক থেকে

স্বামীর সঙ্গে শামীমা নূর পাপিয়া। ছবি: ফেইসবুক থেকে

সে সময় তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, দুই লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ টাকার জাল নোট, ১১ হাজার ৪৮১ ডলার, শ্রীলঙ্কা ও ভারতের কিছু মুদ্রা এবং দুটি ডেবিট কার্ড জব্দ করার কথা জানায় র‌্যাব।

পরে পাপিয়ার ফার্মগেইটের ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগাজিন, ২০টি গুলি, পাঁচ বোতল বিদেশি মদ, ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা এবং বিভিন্ন ব্যাংকের ক্রেডিট ও ডেবিট কার্ড উদ্ধার করা হয়। অভিযান চালানো হয় পাপিয়ার নরসিংদীর বাড়িতেও ।

গ্রেপ্তারের পর পাপিয়া ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে শেরেবাংলা নগর থানায় অস্ত্র ও মাদক আইনে দুটি মামলা করে র‌্যাব। বিমানবন্দর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা করা হয়। এছাড়া মুদ্রা পাচার প্রতিরোধ আইনে সিআইডি আরেকটি মামলা করে।

এর মধ্যে অস্ত্র আইনের মামলায় গতবছর ১২ অক্টোবর এই দম্পতির ২০ বছরের কারাদণ্ডের রায় হয়। আর মাদকের মামলায় এ বছর ১২ জানুয়ারি তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত।

আরও পড়ুন:

জাল টাকার মামলায় পাপিয়া-সুমনের বিচার শুরু  

মাদকের মামলায় পাপিয়া ও সুমনের বিচার শুরু  

অস্ত্র মামলায় পাপিয়া ও সুমনের ২০ বছরের সাজা  

অবৈধ সম্পদ: পাপিয়া ও স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ৮ নভেম্বর  

‘৫ কোটি টাকার সম্পদ লুকিয়েছেন’ পাপিয়া ও তার স্বামী  

পাপিয়ার দায় এখন কেউ নিতে রাজি নয়