পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

সাম্প্রদায়িক সহিংসতা: শাহবাগে অবরোধ স্থগিত, আন্দোলনকারীদের ৩ দফা

  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-20 15:28:29 BdST

সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে তিন দফা দাবি পূরণ করতে সরকারকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়ে অবরোধ কর্মসূচি স্থগিত করেছেন শাহবাগের আন্দোলনকারীরা।

বুধবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে আন্দোলনকারীরা বলেছেন, বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে দাবি না মানলে তারা ‘কঠোর আন্দোলনে’ নামতে বাধ্য হবেন।

দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে গত সোমবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে পৌনে চার ঘণ্টা শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী এবং ইসকন স্বামীবাগ আশ্রমের ভক্তরা।

ওই কর্মসূচি থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দির, বাড়িঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলায় জড়িদের গ্রেপ্তার করে ‘সবোর্চ্চ শাস্তি’ এবং ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেওয়াসহ সাত দফা দাবি তোলা হয়।

এসব দাবি মানতে সরকারকে ২৪ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছিলেন আন্দোলনকারীরা। দুদিন পর সেই কর্মসূচি থেকে সরে এসে সংবাদ সম্মেলনে তারা নতুন ঘোষণা দিলেন।

আন্দোলনে থাকা শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ক এবং জগন্নাথ হল ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জয়দীপ দত্ত বলেন, “ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী সাম্প্রদায়িক হামলায় আহত পরিবারগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দিয়েছেন বলে আমরা বিভিন্ন মিডিয়ার মাধ্যমে অবগত হয়েছি।

“দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক সংঘাতে লিপ্ত অনেক দুর্বৃত্তকেই গ্রেপ্তারের আওতায় আনা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা আশাবাদী, সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টাই করবে।”

জয়দীপ বলেন, “জনদুর্ভোগ কমাতে আমরা আপাতত আমাদের অবরোধ কর্মসূচি স্থগিত করছি। তবে দাবিগুলো বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আমরা আমাদের নিয়মতান্ত্রিক সংগ্রাম চালিয়ে যাব।

কুমিল্লায় একটি মন্দিরে কোরআন অবমাননার কথিত অভিযোগ তুলে বুধবার নানুয়া দিঘীর পাড়ে একটি পূজামণ্ডপের ভাংচুর চালানো হয়। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

কুমিল্লায় একটি মন্দিরে কোরআন অবমাননার কথিত অভিযোগ তুলে বুধবার নানুয়া দিঘীর পাড়ে একটি পূজামণ্ডপের ভাংচুর চালানো হয়। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

“আমরা আশাবাদী হলেও আত্মতুষ্টিতে ভুগতে রাজি নই। দেশের সার্বিক পরিস্থিতির প্রতি আমরা সার্বক্ষণিক নজর রাখছি। ৩১ অক্টোবরের মধ্যে আমাদের দাবি মানা না হলে আবারও রাজপথে নামব এবং দাবি আদায়ের লক্ষ্যে আরও কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব।”

তাদের তিন দফা দাবি হল-

>> দোষীদের গ্রেপ্তার করে দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালে বিচার এবং দৃষ্টান্তমূলক শান্তি দিতে হবে।

>> ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির, বসতবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সংস্কারে প্রয়োজনীয় ক্ষতিপূরণ দিতে হবে এবং হামলায় আহত ও নিহতদের পরিবারগুলোকে পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

>> সংখ্যালঘু কমিশন ও সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় গঠন এবং হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টকে ফাউন্ডেশনে উন্নীত করে জাতীয় বাজেটে পর্যাপ্ত বরাদ্দ রাখতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের ছাত্র সুব্রত বিশ্বাস, প্রণব শর্মা বাঁধন, নীল অনির্বাণ, শিপন সূত্রধরসহ একদল শিক্ষার্থী সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

দুর্গাপূজার মধ্যে গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লা শহরের একটি মন্দিরে কথিত ‘কোরআন অবমাননার’ অভিযোগ তুলে কয়েকটি মন্দিরে হামলা-ভাঙচুর চালানো হয়।

এরপর গত কয়েক দিনে চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, ফেনীস, রংপুরসহ কয়েকটি জেলায় হিন্দুদের বাড়িঘর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও উপাসনালয়ে হামলা-ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। 

পুলিশের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, কুমিল্লার ঘটনার পর পাঁচ দিনে সারাদেশে হিন্দুদের উপর হামলার ঘটনায় সারাদেশে ৭১টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় আটক করা হয়েছে ৪৫০ জনকে।

আরও পড়ুন:

সাম্প্রদায়িক হামলাকারীদের শাস্তিসহ ৭ দাবি শাহবাগ থেকে  

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে হামলা, ঘটনাস্থলে ঢাবি শিক্ষক সমিতি  

সাম্প্রদায়িক হামলা: চোখে কালো কাপড় বেঁধে চবি শিক্ষকের প্রতিবাদ  

সাম্প্রদায়িক হামলা: সারাদেশে ৭১ মামলা, আটক ৪৫০