পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

কোভিড: বিশেষ টিকা কর্মসূচির দ্বিতীয় ডোজ নিতে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভিড়

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-28 12:40:24 BdST

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে এক মাস আগে যাদের করোনাভাইরাসের টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছিল, তাদের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় সারাদেশে ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা এবং সিটি করপোরেশন এলাকার নির্ধারিত কেন্দ্রে এই টিকাদান শুরু হয়।

এই বিশেষ টিকাদান কর্মসূচিরর আওতায় গত ২৮ সেপ্টেম্বর চীনের সিনোফার্মের তৈরি কোভিড টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়।

সে সময় দুই দিনে ৮৩ লাখের বেশি মানুষকে টিবার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছিল বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছিল।

সে সময় যে কেন্দ্র থেকে প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছিল, সেই কেন্দ্র থেকেই দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হচ্ছে। 

রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনের ১২৯টি ওয়ার্ডেও দেওয়া হচ্ছে করোনাভাইরাসের টিকা। সেজন্য প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র করা হয়েছে।

সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের আমুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অস্থায়ী কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় শতাধিক মানুষের কিউ। এই কেন্দ্রে ৪২৫ জনকে প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছিল।

টিকা নিতে আসা পাইটি এলাকার গৃহিনী আলেয়া খাতুন বলেন, “টিকা নেওয়ার আগে অনেক কথার্বাতা শুনছি। কিন্তু টিকা নেওয়ার পর কোনো সমস্যা হয় নাই।”

ঠুলঠুলিয়া এলাকার সত্তরোর্ধ সাবিত্রী দাসও এসেছেন টিকা নিতে। তিনি বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা প্রথম ডোজ নেওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন। এবার দ্বিতীয় ডোজ নিতে এসেছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে রেকর্ড সাড়ে ৬৭ লাখ ডোজ টিকাদান  

‘প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন স্মরণীয় রাখতে টিকা নিয়েছি’  

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ৭৫ লাখ মানুষকে টিকা দিতে ‘প্রস্তুত’ বাংলাদেশ  

“সবাই বলতেছে টিকা নিলে শরীর ভালো থাকে। করোনা হয় না। হের লাইগা নিয়া নিছি।”

টিকা দেওয়া শুরু করতে কিছুটা দেরি হয়েছে জানিয়ে কেন্দ্রের সুপারভাইজার আল আমিন বলেন, “মুগদা থেকে টিকা নিয়ে আসতে একটু  সময় লেহেছে। সেজন্য আধা ঘণ্টা দেরিতে টিকা দেওয়া শুরু করেছি।”

ডিএসসিসির ৭৪ নম্বর ওয়ার্ড কার্যালয়ে করা অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রের সামনেও দেখা গেল টিকা নিতে আসা নারী-পুরুষের লাইন।

নন্দীপাড়া বড় বটতলা এলাকার গৃহিনী সালমা আক্তার বলেন, টিকা নেওয়ার জন্য অগাস্টের মাঝামাঝি সময়ে নিবন্ধন করেছিলেন। কিন্তু এসএমএস আসেনি। বিশেষ টিকাদান কার্যক্রমের খবর শুনে কাউন্সিলর কার্যালয়ে এসে প্রথম ডোজ নেন।

“সবাইকে করোনাভাইরাস যেভাবে আক্রান্ত করছে তাতে টিকা নেওয়াটা নিরাপদ মনে হচ্ছে। এ কারণেই টিকা নিয়ে নিচ্ছি। আর টিকা নিয়ে নানা ধরনের কথাবার্তা শুনেছি। কিন্তু এসব ঠিক না, নিয়ে ভালোই আছি।”

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপ-প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. গোলাম মোস্তফা সারওয়ার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, তারা বৃহস্পতিবারই সবাইকে টিকা দেওয়ার চেষ্টা করবেন। তারপরও যদি কেউ বাদ পড়েন, তারা শনিবার দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে, বুধবার পর্যন্ত সারাদেশে ৫ কোটি ৭৩ লাখের বেশি মানুষ টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন।

করোনাভাইরাসের টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছে ৪ কোটি ১২ লাখ ৬৮ হাজারের বেশি মানুষ। দুই ডোজ পাওয়া মানুষের সংখ্যা ২ কোটি ১৩ লাখ ৩২ হাজারের বেশি।