পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের ভিডিও ব্যবহার করে ‘অপপ্রচারের’ অভিযোগ

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-12-03 15:17:09 BdST

bdnews24

ঢাকার রামপুরায় বাসচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর 'নিরাপদ সড়ক আন্দোলন' নামে একটি ফেইসবুক পেইজ থেকে প্রচারিত লাইভ ভিডিওর অংশবিশেষ ব্যবহার করে ফেইসবুকে 'অপপ্রচার' চালানো হচ্ছে বলে থানায় অভিযোগ করেছেন এক শিক্ষার্থী।

অভিযোগকারী আবদুল্লাহ মেহেদী দীপ্ত 'নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের' যুগ্ম আহ্বায়ক। ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র তিনি।

বৃহস্পতিবার রাতে রামপুরা থানায় দেওয়া লিখিত অভিযোগে তিনি বলেছেন, তার ফেইসবুক লাইভের ভিডিও কপি করে জামায়াত-শিবির সংশ্লিষ্ট ফেইসবুক পেইজ থেকে 'অপপ্রচার' চালানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রামপুরা থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, তারা অভিযোগ পেয়েছেন, বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আবদুল্লাহ মেহেদী দীপ্ত বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “১ মিনিট ৯ সেকেন্ডের ওই ভিডিও বাশের কেল্লা ও অণুবীক্ষণসহ বিভিন্ন ফেইসবুক পেইজ থেকে গুজব ছড়াতে ও অপপ্রচারে ব্যবহার করা হচ্ছে। সেজন্য আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে থানায় অভিযোগ করেছি।”

শিক্ষার্থীদের ‘হাফ’ ভাড়ার আন্দোলনের মধ্যেই গত ২৯ নভেম্বর রামপুরা এলাকায় বামের চাপায় মৃত্যু হয় একরামুন্নেছা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মো. মাঈনউদ্দিনের। এর জেরে সেই রাতে অন্তত আটটি বাসে অগ্নিসংযোগ ও তিনটি বাসে ভাঙচুর চালায় বিক্ষুব্ধ জনতা।

ওই ঘটনা ‘নিরাপদ সড়ক আন্দোলন’ নামের ফেইসবুক পেইজ থেকে লাইভে আসেন আবদুল্লাহ মেহেদী।

সেদিনের ঘটনার বিবরণ দিয়ে তিনি বলেন, “ওই দিন রাতে খিলক্ষেত থেকে আমি ব্যক্তিগত কাজ শেষে রামপুরার বাসায় ফিরছিলাম। রাত সাড়ে ১০টার দিকে রামপুরা ব্রিজে এসে নামি। সেখানে নেমে শুনতে পাই রামপুরা বাজারের পাশে ঝামেলা হচ্ছে। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে পাই, এক শিক্ষার্থী নিহত হওয়ায় বাস ভাঙচুর করা হয়েছে। বাস ভাংচুর করার একটি দৃশ্য আমি লাইভ করেছি। সেখানে বাসে কোনো আগুনের দৃশ্য ছিল না। আরও পরে বাসে আগুন লাগানো হয়েছে।

“এখন ওই লাইভ ভিডিও নিয়ে এডিট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে 'অপপ্রচার' চালানো হচ্ছে। ভিডিওটির অংশবিশেষ কেটে কেটে গুজব ছড়ানো হচ্ছে।”

এ বিষয়টি অবহিত করতে বৃহস্পতিবার দুপুরে বনানী থানায় যান আবদুল্লাহ মেহেদী। থানার কর্মকর্তাদের পরামর্শে সেখান থেকে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখায় (ডিবি) যান। এরপর ডিবি অফিস থেকে ঘটনাস্থল রামপুরা থানা এলাকায় যেতে বলতে সেখানে অভিযোগ দেন তিনি।

রামপুরা থানার ওসি রফিকুল বলেন, “ওই ভিডিওটি বাঁশের কেল্লাসহ আরও কয়েকটি পেইজে দেখা গেছে, এই বিষয়টি নিয়ে সাইবার টিম তদন্ত করছে। তদন্তের পর যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।"

বাঁশের কেল্লা বা অনুবীক্ষণের মত পেইজের সঙ্গে 'নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের' কোনো সম্পর্ক নেই দাবি করে এর আহ্বায়ক মোস্তফা রিজওয়ান রাহাত ‘অপপ্রচারে জড়িত’ পেইজগুলোর সাথে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।