পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

মোহাম্মদপুরে ‘লও ঠেলা’ চক্রের ৯ সদস্য গ্রেপ্তার

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-01-19 19:39:45 BdST

bdnews24

চাঁদার দাবিতে হামলা,ভাঙচুর এবং অস্ত্র নিয়ে দুই দফা মহড়ার পর রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার ‘লও ঠেলা’ নামে একটি কিশোর দলের নয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

বুধবার সকালে অভিযান চালিয়ে গ্রুপের দলনেতা বাবু ওরফে দশের বাবুসহ (২৬) এই চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তার করার কথা র‍্যাব-২ এর সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

গ্রেপ্তার বাকি আটজন হচ্ছেন- মো. ফোরকান (২২), মো. পলাশ (২৩), মো. সুমন (২২), মো. সাগর (২৩), মো. রাজন (২৩), মো. নাজিম (২৪), শাকিল (২০) এবং মিলন (২১)।

র‍্যাব জানায়, গত বছর ৩১ ডিসেম্বর এবং গত ১৬ জানুয়ারি মোহাম্মদপুরের নবীনগর হাউজিং এলাকায় চাঁদার দাবিতে বেশ কিছু দোকানে ভাঙচুর, হামলা এবং দেশীয় অস্ত্র হাতে মহড়া দেয় একটি গ্রুপ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “এই ঘটনা অনুসন্ধান করতে গিয়ে র‌্যাব জানতে পারে ‘লও ঠেলা’ নামে একটি কিশোর গ্যাং এই ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে। যার নেতৃত্বে রয়েছে বাবু ওরফে দশের বাবু।”

র‍্যাব জানায়, বাবুর বিরুদ্ধে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় অস্ত্র, ডাকাতি, দস্যুতা, মাদক, ছিনতাইসহ ছয়টি মামলা রয়েছে। মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান, নবোদয়, বসিলা, চাঁদ উদ্যান এলাকায় তৎপর ছিল তার গ্রুপ।

এসব এলাকায় ডাকাতি, চাঁদাবাজি, ছিনতাই, মাদক ব্যবসা, জবর দখল, ভাড়ায় শক্তি প্রদর্শন এবং আধিপত্য বিস্তারসহসহ এককভাবে বিভিন্ন অপরাধ করে আসছিল কিশোর গ্যাং ‘লও ঠেলা’ গ্রুপ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রায় ২০/২২ বছর আগে বাবু তার মায়ের সঙ্গে ঢাকায় আসে এবং গাড়ির হেলপার, হোটেলের বয় হিসেবে কাজ করতে গিয়ে মাদকে আসক্ত হয়।

“পরে মোহাম্মদপুরের নবোদয় এলাকায় কিশোর গ্যাং গ্রুপ ‘ভাইব্বা ল কিং’ এর সঙ্গে যুক্ত হয়ে ছিনতাই, চাঁদাবাজিসহ নানাধরণের অপরাধে জড়িয়ে পড়ে।”

কিশোর গ্যাং এর সদস্যদের সবার সঙ্গে সমন্বয় করে ‘অত্যন্ত সফলতার’ সঙ্গে বিভিন্ন অপরাধ সংঘটনের কারণে অপরাধ জগতে সে ‘দশের বাবু’ খেতাব পেয়েছিল বলে জানায় র‌্যাব।

এরপরই ২০১৭ সালে সে ‘ভাইব্বা ল কিং’ নামের গ্রুপ থেকে বের হয়ে তার মতাদর্শের কিশোরদের নিয়ে ‘লও ঠেলা’ নামে একটি গ্রুপ তৈরি করে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

বর্তমানে ‘ভাইব্বা ল কিং’ গ্রুপের কয়েকজনকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা গ্রেপ্তার করায় তাদের কর্মকাণ্ড স্থিমিত হয়ে পড়েছে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এই সুযোগে ‘লও ঠেলা’ গ্রুপ একচেটিয়া বিভিন্ন ধরনের অপরাধ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছিল বলে জানায় র‍্যাব।