পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

জনপ্রতিনিধিদের ‘সম্মানের’ বিষয়ে ডিসিদের সচেতন থাকার পরামর্শ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-01-20 18:11:14 BdST

bdnews24

স্থানীয় প্রশাসন ‘সহযোগিতা’ ও ‘সম্মান’ করেন না,- জনপ্রতিনিধিদের এমন অভিযোগের ব্যাপারে জেলা প্রশাসকদের আরও ‘সচেতন’ হওয়ার পরামর্শ দিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

ঢাকার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ডিসি সম্মেলনের তৃতীয় দিন বৃহস্পতিবার চতুর্থ কর্ম অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, “আমাদের সহকর্মীরা… নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা বলেছেন, তাদেরকে স্থানীয় প্রশাসন বা অন্য সরকারি অফিস সে ধরনের সম্মান দেয় না। তারা যে জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন, কিছু কমিটমেন্ট আছে, সেগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিবেচনা করা হয় না।

“এসব বিষয় নিয়ে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ হয় না, এটা দুঃখজনক। জনপ্রতিনিধিদের এই অভিযোগের বিষয়ে আরও সচেতন হতে জেলা প্রশাসকদের বলা হয়েছে।”

প্রবাসীদের পাসপোর্ট, জন্মনিবন্ধন, জাতীয় পরিচয়পত্র ও পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়া ক্ষেত্রেও ‘ভোগান্তির’ কথাও তুলে ধরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “বাংলাদেশি প্রবাসীরা সঠিক সময়ে সেবা পান না, পাসপোর্ট, জন্মনিবন্ধন নেওয়াসহ নানা সেবা নিতে হয়রানির শিকার হন। এসব হয়রানি দূর করে প্রবাসীদের সেবা সহজ করতে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।”

আব্দুল মোমেন বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পাসপোর্ট, এনআইডি তৈরি করে না। বিদেশে থাকা প্রবাসীদের তথ্য সংগ্রহ করে দেশে পাঠালে সেগুলো ফেরত যেতে অনেক দেরি হয়, ফলে প্রবাসীরা অসন্তুষ্ট হয়।

তিনি জানান, প্রবাসীদের কিছু ‘দুঃখের কথা’ তিনি সম্মেলনে জেলা প্রশাসকদের বলেছেন। সেসব বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

“আমাদের প্রায় এক কোটির বেশি প্রবাসী বিদেশে আছেন। তারা অভিযোগ করেন, তারা পাসপোর্ট ঠিক সময়ে পান না, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পান না। তাদের অনেকে দেশে আসলে হয়রানির শিকার হন। তাদের ভূমি অনেকে দখল করে ফেলে, সময়মত ম্যারেজ সার্টিফিকেট, বার্থ সার্টিফিকেট এগুলো হয় না। তাদের ডেডবডি আনতেও তথ্য ঠিকমত পায় না। এ রকম নানা অভিযোগ আছে।”

মোমেন বলেন, “আমরা আশা করি জেলা প্রশাসকরা এসব বিষয়ে আরও সচেতন হবেন যেন প্রবাসীদের আরও দ্রুত হয়রানি ছাড়া সেবা দেওয়া যায়।”

দেশের বিভিন্ন এলাকায় ‘সামান্য বিষয়ে’ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, এসব খবরে বিশ্বের কাছে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ঠিক রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে জেলা প্রশাসকদের আরও শক্ত অবস্থান নিতে বলা হয়েছে।

“কোথাও একটা প্রতিমা ভেঙে ফেলল আর সারা পৃথিবীব্যাপী বিষয়টা ছড়িয়ে যায়। এখন পৃথিবীটা খুব কানেকটেড… গ্রামেগঞ্জে যা হয় সেই খবর সব জায়গায় পৌঁছে যায়। এসব বিষয়ে তারা যেন খুব শক্ত অবস্থান নেন। এই ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে কখনও না হয়।”