পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

দক্ষিণ সুদানে কৃষিজমি ইজারায় এমওইউ


  • Published: 2012-08-05 15:15:34 BdST

দক্ষিণ সুদানে বাংলাদেশের আয়তনের প্রায় এক-চতুর্থাংশ এলাকায় কৃষিজমি ইজারা নিয়ে খাদ্যশস্য উৎপাদন করতে যাচ্ছে সরকার। প্রকল্প চূড়ান্ত করতে শিগগির যাচ্ছে কারিগরি দল।

ঢাকা, অগাস্ট ০৫ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- দক্ষিণ সুদানে বাংলাদেশের আয়তনের প্রায় এক-চতুর্থাংশ এলাকায় কৃষিজমি ইজারা নিয়ে খাদ্যশস্য উৎপাদন করতে যাচ্ছে সরকার। প্রকল্প চূড়ান্ত করতে শিগগির যাচ্ছে কারিগরি দল।

দক্ষিণ সুদান ও কেনিয়া সফর শেষে দেশে ফিরে প্রবাসী কল্যাণ এবং শ্রমমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন রোববার সাংবাদিকদের একথা জানান।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী জানান, কৃষিজমি ইজারা সংক্রান্ত দক্ষিণ সুদান সরকারের সঙ্গে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) অনুযায়ী প্রকল্প চূড়ান্ত করতে আগামী ছয় সপ্তাহের মধ্যে কারিগরি দল পাঠানো হবে। কৃষি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে কারিগরি দল গঠন করা হবে।

প্রবাসী কল্যাণ সচিব জাফর আহমেদ খান ও শ্রম সচিব মিকাইল শিপার এবং বিএমইটি মহাপরিচালক শামসুন নাহার এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

মোশাররফ জানান, শুধু দক্ষিণ সুদান নয়, কেনিয়াও সেখানে যৌথভাবে কৃষি উৎপাদনের ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছে। তারাও একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের জন্য প্রস্তাব পাঠাতে বলেছে। এ ব্যাপারে শিগগিরই সরকার পদক্ষেপ নেবে।

গত বুধবার বাংলাদেশ ও দক্ষিণ সুদানের কৃষি মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর হয়।

মন্ত্রী বলেন, “এ সমঝোতা স্মারকের আওতায় কৃষিজমি ইজারা নিয়ে খাদ্যশস্য উৎপাদনের মাধ্যমে দু-দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত, কৃষি শ্রমিকদের প্রশিক্ষণ এবং লাগসই কৃষি প্রযুক্তি ব্যবহারে দক্ষিণ সুদানের সঙ্গে পারস্পরিক সহযোগিতা ভিত্তিতে কাজ করবে বাংলাদেশ।”

গত ২৮ জুলাই প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধিদল দক্ষিণ সুদান সফরে যান।

সমঝোতা স্মারক প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, “উৎপাদিত পণ্যের ভাগাভাগি, জমি পাওয়ার শর্ত এবং উৎপাদনের বিভিন্ন শর্ত চূড়ান্ত করতে কারিগরি দলটি দক্ষিণ সুদানে যাবেন। সেখানে তাদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসেই বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে।”

সুদানের বিভিন্ন বৈঠকে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের পিএসও লে. জেনারেল আবদুল ওয়াদুদ, কেনিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার ওয়াহিদুর রহমান এবং জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক শামসুন নাহার, কৃষি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব জমসের আহমেদ, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ডিজি (আফ্রিকা) আল্লামা সিদ্দিকী উপস্থিত ছিলেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এমকে/এএল/২১০২ ঘ.