মন্ত্রণালয়ের ৩১৩ শব্দের বক্তব্যে এত ভুল!

  • নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2015-05-21 19:12:58 BdST

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ সম্মেলনের এক পৃষ্ঠার লিখিত বক্তব্যে অর্ধশত শব্দের ভুল বানান পাওয়া গেছে।

কম্পিউটারে কম্পোজ করা ৩১৩ শব্দের ওই কপিতে লাইন স্পেসিংয়েও ছিল অসংখ্য ভুল; বেশ কয়েকটি শব্দকে লেখা হয়েছে ভেঙে ভেঙে।

এক পৃষ্ঠার লিখিত বক্তব্যে এতগুলো বাংলা বানান ভুলকে নিজেদের ‘দৈন্যদশা’ হিসাবে স্বীকার করেছেন স্থানীয় সরকার বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব আবদুল মালেক।

নগরস্বাস্থ্য নিয়ে ১২তম আন্তর্জাতিক সম্মেলনের খবর জানাতে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন মালেক। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এদিন দপ্তরে আসেননি।

লিখিত বক্তব্য সাংবাদিকরা পাওয়ার পর দেখা যায়, ‘আন্তর্জাতিক’, ‘সম্মেলন’, ‘নির্ধারক’, ‘অংশগ্রহণ’, ‘জনগোষ্ঠী’, ‘প্রথম’, ‘ব্যাংক’, ‘সেশন’, ‘পোস্টার’, ‘প্রবন্ধ’, ‘গবেষণা’, ‘ঘোষণা’সহ মোট ৪৮টি শব্দ ভুল বানানে লেখা।

লিখিত ওই বক্তব্যে বিল গেইটস ফাউন্ডেশনকে লেখা হয়েছে ‘বিলগেইট ফাউন্ডেশন’।

সরকারি কাজে বাংলা একাডেমির প্রমিত বাংলা বানানের নিয়ম অনুসরণ করতে ২০১২ সালের ৩১ অক্টোবর নির্দেশনা জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

বাংলা একাডেমির প্রমিত বাংলা বানানের নিয়ম অনুসরণ করতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কয়েক দফা তাগাদাও দেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

এছাড়া জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংস্কার, গবেষণা ও আইন অনুবিভাগের ‘বাংলা ভাষা ও বাস্তবায়ন কোষ’ বাংলা একাডেমির প্রমিত বাংলা বানানের নিয়ম নিয়ে ৭৫ পৃষ্ঠার একটি ম্যানুয়ালও তৈরি করেছে।

লিখিত বক্তব্যে বানান ভুলের বিষয়ে সচিব আবদুল মালেক বলেন, “এটা (তিনি যে বক্তব্য পড়েছেন তার কপি) আমরা কেউ দেখিনি। প্রতি লাইনে লাইনে ভুল আছে, আপনারা (সাংবাদিক) ঠিকই ধরেছেন।”

এক পাতার লিখিত বক্তব্যে এতগুলো ভুল মন্ত্রণালয়ের দৈন্যদশার চিত্র কি না- এ প্রশ্নে খানিকটা সময় নিয়ে তিনি বলেন, “এটা দৈন্যদশা, ঠিকই দৈন্যদশা।”

সচিব জানান, আগামী ২৪ থেকে ২৭ মে ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে নগরস্বাস্থ্য বিষয়ক দ্বাদশ সম্মেলন হবে।

জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ২৪ মে এর উদ্বোধন করবেন। এতে ৮টি প্লেনারি সেশন, ৩২টি ব্রেক আউট সেশন, ২০টি বিশেষ অধিবেশন ছাড়াও কয়েকটি বিজনেস সেশন থাকবে।

৬০ দেশের ৪০০ প্রতিনিধি এই সম্মেলনে অংশ নেবেন জানিয়ে মালেক বলেন, সম্মেলন শেষে একটি ঘোষণাপত্র প্রণয়ন করা হবে যা ভবিষ্যতের কর্মসূচি প্রণয়নে বিভিন্ন দেশের জন্য অনুকরণীয় হবে।