পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

পার্লামেন্টে টিউলিপের প্রথম বক্তৃতা শুনলেন খালা শেখ হাসিনা

  • সুমন মাহবুব, লন্ডন থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2015-06-16 19:22:32 BdST

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভাগ্নি টিউলিপ সিদ্দিকের বক্তব্য শুনলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। হাউস অফ কমন্সে এটাই ছিল বঙ্গবন্ধুর নাতনির প্রথম বক্তৃতা।

ইউরোপীয় ইউনিয়নে যুক্তরাজ্যের থাকা না থাকা নিয়ে গণভোট প্রশ্নে বিলের উপর বিতর্কে মঙ্গলবার বক্তব্য রাখেন বিরোধী দল লেবার পার্টি থেকে প্রথমবার নির্বাচিত টিউলিপ।

লন্ডন সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সপরিবারে হাউজ অফ কমন্সে গ্যালারিতে বসে টিউলিপের বক্তব্য শোনেন। তার সঙ্গে ছিলেন ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় ও তার স্ত্রী এবং মেয়ে সায়মা হোসেন পুতুল।

টিউলিপের মা প্রধানমন্ত্রীর বোন শেখ রেহানা, ভাই রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক, স্বামী ক্রিস পার্সিও ছিলেন হাউস অফ কমন্সে।

সবাইকে নিয়ে শেখ হাসিনা হাউস অফ কমন্সে পৌঁছালে তাকে অভ্যর্থনা জানান অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপের চেয়ারম্যান কিথ ভাজ।

পার্লামেন্ট ভবনে শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানান কিথ ভাজ

পার্লামেন্ট ভবনে ঢুকছেন শেখ হাসিনা

হাউস অফ কমন্সে টিউলিপের বক্তৃতা শোনার পর হাউজ অফ লর্ডসের স্পিকার ব্যারনেস ডি সুজার সঙ্গে শেখ হাসিনা বোন রেহানাকে সঙ্গে নিয়ে একান্তে বৈঠক করেন বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব এ কে এম শামীম চৌধুরী। 

বঙ্গবন্ধুর নাতনি পার্লামেন্টে প্রথম বক্তব্যে তার রাজনৈতিক উত্তরাধিকারের কথা বলতে গিয়ে ১৯৭৫ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের নায়ক তার নানা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যাকাণ্ডের কথাও তুলে ধরেন; বলেন তার মা ও খালার পরিবারের সবাইকে হারানোর কথা।

এরপর নিজের মা শেখ রেহানার অভিবাসী হিসেবে হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্নের বাসিন্দা হয়ে উঠার কথাও বলেন টিউলিপ, যে আসন থেকে গত মাসে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে ভোটে জয়ী হয়ে পার্লামেন্টে এসেছেন তিনি।

৩২ বছর বয়সী টিউলিপ তাকে নির্বাচিত করায় যুক্তরাজ্যে তার নির্বাচনী এলাকার ভোটারদের ধন্যবাদ জানান। সেই সঙ্গে ওই আসনটির গুরুত্বও পার্লামেন্ট সদস্যদের সামনে তুলে ধরেন তিনি।

এমপি হিসেবে খালার হাত থেকে শুভেচ্ছার ফুল নিচ্ছেন টিউলিপ সিদ্দিক (সোমবারের ছবি)

প্রায় ১০ মিনিটের বক্তব্যে অভিবাসীদের জন্য যুক্তরাজ্যের দ্বার অবারিত রাখার দাবি জানান লেবার পার্টির পার্লামেন্ট সদস্য টিউলিপ, যা রক্ষণশীল সরকার অনেকটাই সঙ্কুচিত করে রেখেছে বলে অভিবাসীদের অভিযোগ।

টিউলিপের বক্তব্যের সময় অধিবেশন কক্ষে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে নির্বাচিত প্রথম বাংলাদেশি রুশনারা আলীও। রুশনারার সঙ্গে এবার টিউলিপ ছাড়াও বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রূপা হক লেবার পার্টি থেকে নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচিত হওয়ার পর টিউলিপ তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের বলেছিলেন, “আজকে সবচেয়ে মনে পড়ছে আমার খালাকে। কারণ উনি আমাকে সবচেয়ে বেশি শিখিয়েছেন।

“রাজনীতি নিয়ে উনার কাছ থেকেই সব শিখলাম। সোশাল জাস্টিসটা শিখলাম। শিখলাম কীভাবে ক্যাম্পেইন করতে হয়। মানুষের কাছে যেতে হয়। খালাকেই সবচেয়ে বেশি মনে পড়ছে।”