২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০ ফাল্গুন ১৪২৫

দুর্নীতি নিয়ে বিএসটিআই কর্মকর্তাদের সাবধান করলেন সংস্থার প্রধান

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-01-17 22:26:01 BdST

bdnews24

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন-বিএসটিআইয়ের কাজে কোনো ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতি হলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাবধান করেছেন সংস্থাটির মহাপরিচালক মো. মুয়াজ্জেম হোসাইন।

বাংলাদেশে পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান বিএসটিআই। খাদ্যপণ্য, প্রসাধনী ও অন্যান্য নিত্য ব্যবহার্য পণ্যসহ মোট ১৯৪টি পণ্য বাজারজাতকরণের ক্ষেত্রে বিএসটিআইয়ের সনদ নেওয়া বাধ্যতামূলক। 

বৃহস্পতিবার ঢাকার তেজগাঁওয়ে বিএসটিআইয়ের প্রধান কার্যালয়ে আঞ্চলিক ও জেলা পর্যায়ে সংস্থাটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে এক সমন্বয় সভায় মহাপরিচালক ওই হুঁশিয়ারি দেন।

মহাপরিচালক বলেন, “বর্তমান সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ ঘোষণা করেছে। বিএসটিআইয়ের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগের সত্যতা পেলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

তিনি বলেন, বিএসটিআই সেবাধর্মী এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রতিষ্ঠান। এখানে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেবার মানসিকতা নিয়ে কাজ করতে হবে।

“এ প্রতিষ্ঠানে অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির কোনো স্থান নেই। তাই আপনারা কেউ এসব কাজের সাথে যুক্ত হবেন না।”

ছয় শতাধিক জার ধ্বংস

এদিকে বিএসটিআইয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার ঢাকার মতিঝিল, হাটখোলা রোড, জনসন রোড, ঢাকা মেডিকেল, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও ভিক্টোরিয়া পার্ক সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ভেজাল খাবার পানি উৎপাদনে জড়িত কয়েকটি কারখানা চিহ্নিত করেছে কর্তৃপক্ষ।

অভিযানকালে আইন অমান্য করে লেবেলবিহীন ও নোংরা জারে পানি সরবরাহের কারণে আম্পাং ড্রিংকিং ওয়াটার, সেনসিবল বেভারেজ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ও আল হেরা এন্টারপ্রাইজের ছয় শতাধিক নোংরা ও জীর্ণ জার জব্দ ও ধ্বংস করা হয়।