ব্র্যাকের খাদ্য সহায়তা তহবিলে গ্রামীণফোনের ১৫ কোটি টাকা

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-04-24 19:45:34 BdST

bdnews24

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে চলমান লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যে খাদ্য সংকটে থাকা এক লাখ পরিবারকে সহায়তা দিতে ব্র্যাকের তহবিলে ১৫ কোটি টাকা দিচ্ছে গ্রামীণফোন।

শুক্রবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সংকটে থাকা মানুষের সহায়তার অংশ হিসাবে ‘ডাকছে আমার দেশ’ নামে একটি উদ্যোগেরও ঘোষণা দিয়েছে দুই প্রতিষ্ঠান।

ব্র্যাকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, যুথবদ্ধ প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে ‘ডাকছে আমার দেশ’। মহৎ উদ্দেশ্যে গণ তহবিল সংগ্রহে এবং প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায় থেকে অবদান রাখায় সবাইকে উদ্বুদ্ধ করবে।

“গ্রামীণফোন ব্র্যাকের জরুরি খাদ্য সহায়তা তহবিলে ১৫ কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা দান করবে, যা ব্র্যাককে ক্ষতিগ্রস্ত ১ লাখ পরিবারের কাছে সাহায্য পৌঁছাতে সহায়তা করবে। এ উদ্যোগে প্রতি পরিবারকে দেড় হাজার টাকা করে দেওয়া হবে, যা দিয়ে চার সদস্যের একটি পরিবার অন্তত দুই সপ্তাহের জরুরি খাবার কিনতে পারবে।”

গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “এখনই সময় সরকারি-বেসরকারি খাতকে একসঙ্গে সামনে এগিয়ে এসে কোভিড-১৯ এর দুর্যোগ মোকাবিলা করা। যৌথ প্রচেষ্টায় একসঙ্গে শক্তিশালী হওয়ার মাধ্যমে সমাজে ইচিবাচক প্রভাব ফেলতে আমরা শুরু থেকেই বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার সাথে কাজ করে যাচ্ছি।”

তিনি বলেন, “এ সঙ্কটকালীন সময়ে আমরা একসাথে অনেক বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারব, যাদের এ মুহূর্তে বেশি সহায়তার প্রয়োজন। এ প্রতিকূল অবস্থা মোকাবিলায় সরকারকে সহায়তায় গ্রামীণফোন এ উদ্যোগ ছাড়াও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, এটুআই, বিটিআরসি, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ও ইউনিসেফের সাথে সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত রাখবে।”

‘ডাকছে আমার দেশ’ উদ্যোগ কিংবা সরকারি সংস্থাগুলোর নেওয়া অন্য উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত হতে সামর্থ্যবান সব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রতি আহ্বান জানান গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।

ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ বলেন, “এটি শুধুমাত্র স্বাস্থ্য নিয়ে বৈশ্বিক মহামারীই নয়, এটা মানবিক সঙ্কট। এ মুহূর্তে জাতির আমাদেরকে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন।

“এক লাখের বেশি মাঠকর্মী, স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবী নিয়ে ব্র্যাক মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছে। সক্ষমতা ও প্রয়োজনীয় দক্ষতা বৃদ্ধি, জনস্বাস্থ্য বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধি, পিপিই সরবরাহ এবং মানুষের প্রয়োজনে জরুরি আর্থিক সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে আমরা সরকারকে সহায়তা করে যাচ্ছি।”

এক্ষেত্রে আরও দুই লাখ পরিবারকে খাদ্য সহায়তার জন্য ৩০ কোটি টাকার নগদ অর্থ সহায়তা দেওয়ার কথা তুলে ধরেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাকের কমিউনিকেশন অ্যান্ড আউটরিচ ডিরেক্টর মৌটুসী কবির এবং গ্রামীণফোনের সাসটেইনিবিলিটি প্রজেক্ট লিড এম. হাফিজুর রহমান খান। সংবাদ সম্মেলনে সঞ্চালকের দায়িত্বে ছিলেন গ্রামীণফোনের হেড অব কমিউনিকেশনস খায়রুল বাশার। 

ব্যক্তি পর্যায় ও প্রাতিষ্ঠানিকভাবে সহায়তার মাধ্যমে ‘ডাকছে আমার দেশ’ উদ্যোগ যুক্ত হতে ব্যাংক হিসাব নম্বর ও বিকাশ নম্বর দিয়েছে ব্রাক ও গ্রামীণফোন; ব্যাংক হিসাব নাম: ব্র্যাক, হিসাব নম্বর: ১৫০১২০-২৩১৬৪৭৪০০১, নাম: ব্র্যাক ব্যাংক, গুলশান ১, গুলশান অ্যাভিনিউ, ঢাকা। বিকাশ নম্বর: ০১৭৩০৩২১৭৬৫।