পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

রিকন্ডিশন্ড গাড়িতে ৪৫% অবচয়ন সুবিধা দাবি বারভিডার

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-06-10 13:58:37 BdST

bdnews24

নতুন বাজেটে মাইক্রোবাসের ওপর শুল্কায়ন হার কমিয়ে আনার প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছে পুরোনো গাড়ি আমদানিকারকদের সংগঠন বাংলাদেশ রিকন্ডিশন্ড ভেহিক্যালস ইম্পোর্টার্স অ্যান্ড ডিলার্স অ্যাসোসিয়েশন-বারভিডা।

তবে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আমদানিতে ৪৫ শতাংশ অবচয়ন সুবধা চেয়েছে সংগঠনটি।

বাজেট উত্থাপনের প্রায় এক সপ্তাহ পর বুধবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন করে বাজেটের ওপর মতামত তুলে ধরে বারভিডা।

নানা ধরনের শুল্ক বাধা, নতুন প্রযুক্তির গাড়ির উদ্ভাবন ও শুল্কছাড়ের মাধ্যমে সেগুলোর বাজারে প্রভাব বিস্তারের সুযোগ দেওয়ায় পুরনো গাড়ির ব্যবসা সঙ্কুচিত হয়ে যাচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়।

পুরনো গাড়ি আমদানি কমার তথ্য তুলে ধরে বলা হয়, ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে ২০ হাজার ১৪৯টি এবং ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে ২৩ হাজার ০৭৫টি গাড়ি আমদানি করা হয়েছে।

অথচ ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে আমদানি কমে ১২ হাজার ৫০২টিতে নেমে আসে। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরেও আমদানি কমার ধারা অব্যহত রয়েছে। আমদানি কমে যাওয়ার সাথে সাথে সরকারের রাজস্ব আয়ও কমেছে।

বারভিডার সভাপতি আব্দুল হক বলেন, “আগে রিকন্ডিশন গাড়ির ক্ষেত্রে ৬৫ শতাংশ অবচয়নের সুযোগ থাকলেও সেটা কমিয়ে বর্তমানে ৩৫ শতাংশে নিয়ে আসা হয়েছে। ফলে নতুন গাড়ির সঙ্গে দামের প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়ছে রিকন্ডিশন গাড়ি।

“বর্তমান বাজার পরিস্থিতি বিবেচনায় আমরা এই অবচয়নকে আবার ৪৫ শতাংশে উন্নীত করার দাবি জানাচ্ছি।”

গত বৃহস্পতিবার সংসদে উত্থাপিত ২০২১-২০২২ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবে ১৮০০ সিসি পর্যন্ত মাইক্রোবাসের সম্পূরক শুল্ক ২০ শতাংশ থেকে কমিয়ে শূন্য শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আর ১৮০১ থেকে ২০০০ সিসি পর্যন্ত মাইক্রোবাসের সম্পূরক শুল্ক ৪৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩০ শতাংশ করার কথা বলা হয়েছে।

২০০১ থেকে বেশি সিসির মাইক্রোবাসের সম্পূরক শুল্ক ৬০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৪৫ শতাংশের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বাজেটে।

বারভিডার মহাসচিব মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম বলেন, “গণপরিবহন হিসেবে বহুল ব্যবহৃত ১০-১৫ আসন সেগমেন্টের মাইক্রোবাস (এইচএস কোড ৮৭.০২)। নগর ও গ্রামীণ জীবনে বিশেষ প্রভাব রাখছে এ ধরনের গাড়ি। তাই এসব গাড়ি আমদানির ক্ষেত্রে সম্পূরক শুল্ক সম্পূর্ণ প্রত্যাহারের জন্য বারভিডার আবেদনটি গ্রহণ করার আহ্বান জানাচ্ছি।”

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম ও জসিম উদ্দিন মিন্টু, কোশাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আনিছুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।