পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

চিনি, ডাল, ময়দার দাম চড়ছে

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-08-24 20:21:30 BdST

bdnews24
ডাল, তেল ও চিনি কিনতে ভিড় বাড়ছে টিসিবির ট্রাকের সামনে। ফাইল ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

মহামারীর মধ্য দেশের বাজারে চিনি, আটা, ময়দা, মসুর ডালের দাম বাড়ছে। মিল মালিকরা এজন্য বিশ্ববাজারে দাম বেড়ে যাওয়াকে কারণ দেখাচ্ছেন।

ঢাকার বাজারে চিনির দাম এক মাসের ব্যবধানে কেজিতে অন্তত ১০ টাকা বেড়েছে। এক সপ্তাহের মধ্যে  বড় দানার মসুর ডালের দামও কেজিতে ৭ টাকা করে বেড়েছে।

গত এক মাসে ময়দার দাম কেজিতে ৪ টাকা, আটার দাম ২ টাকা বেড়েছে।

পীরেরবাগ কাঁচা বাজারের মুদি দোকানি শাহাদাত হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, চিনির দাম ‘আশ্চর্যজনকভাবে’ বাড়ছে। গত এক মাসে কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে চিনি এখন ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বড় দানার মসুর ডাল কেজি ৭৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে পাইকারিতে দর বেড়ে যাওয়ায় আগামী সপ্তাহে ৮০ টাকায় বিক্রি করতে হবে শাহাদাতকে।

আটা-ময়দার দাম সামান্য বাড়ার তথ্য জানিয়ে তিনি বলেন, ঈদের পর পর ময়দার দাম ছিল বস্তা (৫০ কেজি) ১৫০০ টাকা থেকে ১৬০০ টাকা। এখন সেটা ১৮৮০ টাকা থেকে ১৯৫০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। খুচরায় ৩৯ টাকা থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে ময়দা। একইভাবে আটার বস্তা ছিল ১৩৩০ টাকা। এখন তা ১৬০০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। বিক্রি করতে হচ্ছে প্রতি কেজি ২৬ টাকায়।

কারওয়ান বাজারে সোনালী ট্রেডার্স নামের একটি পাইকারি দোকানের পরিচালক আবুল কাশেম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ১০/১৫ দিন ধরে ময়দার দাম বাড়তি। এখন সিটি গ্রুপের ময়দার বস্তা (৫০ কেজি) ১৮০০ টাকা, যা দুই সপ্তাহ আগে ১৬০০ টাকা ছিল। বসুন্ধরা ও মেঘনা গ্রুপের আটার দাম কিছুটা কম।

প্রতি বস্তা চিনি এখন ৩৩৫০ টাকা থেকে বেড়ে ৩৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত দুই দিন ধরে দাম স্থিতিশীল।

“মিল মালিকরা ময়দা, চিনির দাম বাড়িয়েছে তাই পাইকারি বাজারে বেড়েছে,” বলেন কাশেম।

চিনি, আটা, ময়দা ও ডালের দাম বৃদ্ধির বিষয়ে সিটি গ্রুপ ও মেঘনা গ্রুপের প্রতিনিধিদের সঙ্গে যোগাযোগ করেও তাদের সাড়া পাওয়া যায়নি।

পাইকারি পণ্যের আড়ত পুরান ঢাকার মৌলভীবাজারের ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা জানান, ব্রাজিলে শ্রমিক সঙ্কট ও বিশ্বাবাজারে চিনির কাঁচামালের দাম বাড়ার কারণে দেশের বাজারে দাম বেড়েছে।

কয়েকটি মিল মালিকের কাছ থেকে পাওয়ার তথ্যের উদৃতি দিয়ে তিনি বলেন, “এক মাসের ব্যবধানে চিনির কাঁচামালের দাম প্রতি টন ৩৫০ ডলার থেকে বেড়ে ৫০০ ডলারে ঠেকেছে। এখন মিল মালিকরা প্রতিকেজি ৮০ টাকা দরে চিনি বিক্রি করতে চাচ্ছে। ইতোমধ্যেই মিল গেই ৭২ টাকায় উঠে গেছে চিনির দাম।”

সরকারি বিপণন সংস্থা টিসিবির হিসাবে, গত এক মাসে মসুর ডালের দাম আকার ও মানভেদে ৩ থেকে ১০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। চিনির দাম বেড়েছে ১২ শতাংশ।

এই পরিস্থিতিতে বুধবার নিত্যপণ্যের বাজার ব্যবস্থাপনা ও সরবরাহ নিয়ে বৈঠকে বসছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। নিয়মিত ওই বৈঠকে ব্যবসায়ীরাও যোগ দেবেন বলে জানা গেছে।