পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

কাপালী-জুনায়েদ-তুষারের সঙ্গে ইয়াসির

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-01-07 17:40:22 BdST

bdnews24

অলক কাপালী, জুনায়েদ সিদ্দিক, তুষার ইমরানের সঙ্গে জাতীয় ক্রিকেট লিগের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের তালিকায় আছেন তরুণ ইয়াসির আলী চৌধুরী। বরাবরের মতো রান পেয়েছেন ফরহাদ হোসেন, শাহারিয়ার নাফীস। সদ্য সমাপ্ত আসর দিয়ে নিজেকে মেলে ধরেছেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক সাইফ হাসান।

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরে নিজের প্রথম টুর্নামেন্টে ব্যর্থ মোহাম্মদ আশরাফুল। রান পেয়েছেন নিজেদের ফিরে পাওয়ার লড়াইয়ে থাকা এনামুল হক ও নাসির হোসেন।

৫৯৮ রান করে চার দিনের ক্রিকেটের টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক কাপালী। এই মৌসুমেই নিজের তৃতীয় দ্বিশতক পেয়েছেন ৩৩ বছর বয়সী ডানহাতি ব্যাটসম্যান। দুটি শতক আর একটি অর্ধশতকে ৬৬.৪৪ গড়ে রান করেছেন সিলেটের অধিনায়ক। ষষ্ঠ রাউন্ডে চট্টগ্রামের বিপক্ষে অপরাজিত ২০০ রানে ছাড়িয়ে যান সবাইকে।

তামিম ইকবাল, মুমিনুল হকদের অনুপস্থিতিতে চট্টগ্রামের ব্যাটিংকে নেতৃত্ব দেন ইয়াসির। ২০ বছর বয়সী এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান ৫৮.৫০ গড়ে করেন ৫৮৫ রান। সর্বোচ্চ ৬৮টি চার হাঁকানো এই তরুণ ছিলেন প্রতিযোগিতার সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটসম্যানদের একজন। ১২ ইনিংসে ছয়বারই পঞ্চাশ বা তার বেশি রান করেন।

এবারই প্রথম শতকের দেখা পেয়েছেন ইয়াসির। অপরাজিত ১০৫ রান করা এই তরুণ অর্ধশতক করেছেন পাঁচটি। বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে কেবল তিনিই ১২ ইনিংসে ব্যাট করেছেন, সবচেয়ে বেশি ১ হাজার ১৩১ বল খেলেছেন।

২৯ বছর বয়সী জুনায়েদ লিগের তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। ১০ ইনিংসে দুটি শতক ও চারটি অর্ধশতকসহ ৬৩.১১ গড়ে ৫৬৮ রান করেছেন রাজশাহীর এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। সেরা ১২৬।

খুলনার শিরোপা জয়ে দারুণ অবদান তুষার ইমরানের। শেষ তিন ম্যাচে টানা তিন শতক করেছেন ৩৩ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি ২১টি শতকের রেকর্ড তারই। সাত ইনিংসে চারবারই খেলেছেন পঞ্চাশ বা তার বেশি রানের ইনিংস।

৮৬.৩৩ গড়ে ৫১৮ রান করেছেন তুষার। এই আসরে দুটির বেশি শতক পেয়েছেন কেবল তিনিই। তার সর্বোচ্চ ১৪১ রান।

দুটি শতক ও একটি অর্ধশতকসহ ৫১.৮৮ গড়ে ৪৬৭ রান করেছেন রাজশাহীর মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান ফরহাদ হোসেন। সর্বোচ্চ ১৩২ রান।

এবারের আসরে সর্বোচ্চ ২৪২ রানের ইনিংস খেলা ঢাকার তাইবুর দুটি শতকসহ ৯৩.২০ গড়ে করেছেন ৪৬৬ রান। দুটি করে শতক-অর্ধশতকসহ ৬৪.৪২ গড়ে আরেক তরুণ এনামুল করেছেন ৪৫১ রান। সর্বোচ্চ ১৯টি ছক্কা হাঁকানোর কৃতিত্ব তারই। একটি শতক ও দুটি অর্ধশতকে ৪৪.৭৭ গড়ে শাহরিয়ারের রান ৪০৩।

সবচেয়ে কম বয়সী বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে দ্বিশতক পাওয়া সাইফ মাত্র চার ইনিংসেই দেখিয়েছেন নিজের সামর্থ্য। ১৮ বছর বয়সী এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান ৯০.৫০ গড়ে করেছেন ৩৬২ রান। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এবারই পেয়েছেন শতকের দেখা। খুলনার বিপক্ষে ১০৯ রান করার পর বরিশালের বিপক্ষে খেলেন ২০৪ রানের দারুণ ইনিংস।

জাতীয় দলের কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে স্পষ্ট করেই বলেছেন, জাতীয় দলে ফিরতে প্রচুর রান করতে হবে নাসিরকে, নিতে হবে প্রচুর উইকেট। এবার বোলিংয়ের খুব একটা সুযোগ মেলেনি তবে তিন ম্যাচে খেলা চার ইনিংসে দিয়েছেন চেনা ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত।

১০৯.৩৩ গড়ে ৩২৮ রান করেছেন ‘দ্য ফিনিশার’ নামে পরিচিত এই অফ স্পিন অলরাউন্ডার। ক্যারিয়ারের প্রথম দ্বিশতক পেয়েছেন এবারই। সিলেটের বিপক্ষে খেলেন ২০১ রানের অসাধারণ ইনিংস।

নিষেধাজ্ঞ কাটিয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে ফেরা মোহাম্মদ আশরাফুল ৬ ইনিংসে করেন ১২৩ রান। সর্বোচ্চ ৩৯ রান করা এই মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান বাদ পড়েন শেষ ম্যাচে।

 

নাম

দল

ইনিংস

রান

গড়

সর্বোচ্চ

অলক কাপালী

সিলেট

১১

৫৯৮

৬৬.৪৪

২০০*

ইয়াসির আলী

চট্টগ্রাম

১২

৫৮৫

৫৮.৫০

১০৫*

জুনায়েদ সিদ্দিক

রাজশাহী

১০

৫৬৮

৬৩.১১

১২৬

তুষার ইমরান

খুলনা

৫১৮

৮৬.৩৩

১৪১

ফরহাদ হোসেন

রাজশাহী

১০

৪৬৭

৫১.৮৮

১৩২