পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

আলো ছড়ালেন রুবেল, উজ্জ্বল মুস্তাফিজও

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-02-05 18:19:26 BdST

ছন্দ ফিরে পাওয়ার লড়াইয়ে থাকা দুই পেসার নামলেন নিজেদের মধ্যে অদৃশ্য প্রতিযোগিতায়। প্রথম বলেই উইকেট পেলেন মুস্তাফিজুর রহমান, তাকে ছাড়িয়ে যেতে ৫ উইকেট নিলেন রুবেল হোসেন। তাতে পুড়ল পূর্বাঞ্চল। ফলোঅনে পড়া দলটির সামনে এখন ইনিংস ব্যবধানে হারের শঙ্কা।

প্রথম দিন যেখানে ছিল ব্যাটসম্যানদের দাপট সেখানে দ্বিতীয় দিন রাজত্ব করেছেন বোলাররা। এদিন পতন হয়েছে ১৯ উইকেট। 

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে দ্বিতীয় রাউন্ডে রোববারের খেলা শেষে পূর্বাঞ্চলের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৭৪ রান। অলক কাপালী ১০ ও শাহানুর রহমান শূন্য রানে ব্যাট করছেন। দক্ষিণাঞ্চলকে আবার ব্যাটিংয়ে নামাতে দ্বিতীয় ইনিংসে আরও ১৮৫ রান চাই তাদের।

দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ ওভার করে বল করেন রুবেল-মুস্তাফিজ। তাতে একটি উইকেট নেন রুবেল। দুই ইনিংসেই এই পেসার বিদায় করে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মেহেদী মারুফকে।

দ্বিতীয় ইনিংসে দক্ষিণাঞ্চলের স্পিনাররা বেশি বল করেন। অধিনায়ক আব্দুর রাজ্জাক ১৪ ওভারে ৮ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। অফ স্পিনার সোহাগ গাজী ১৫ ওভারে ২৪ রান দিয়ে নেন ১ উইকেট।

এর আগে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ৬ উইকেটে ৩৭৬ রান নিয়ে খেলা শুরু করে দক্ষিণাঞ্চল। এদিন ২৭ রান যোগ করতে শেষ ৪ উইকেট হারায় দলটি। আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান সোহাগ ও জিয়াউর রহমান এদিন নিজেদের ইনিংস খুব একটা বড় করতে পারেননি।

ইনিংসের প্রথম বলেই ইরফান শুক্কুরকে বোল্ড করে দলকে দারুণ শুরু এনে দেন মুস্তাফিজ। তার সঙ্গে শিকারে যোগ দেন রুবেল ও সোহাগ। ৩৮ রানেই বিদায় নেন পূর্বাঞ্চলের পাঁচ ব্যাটসম্যান।

বোলিংয়ে ফিরে শাহানুরকে জিয়ার ক্যাচে পরিণত করেন মুস্তাফিজ। বাঁহাতি এই পেসার ৯ ওভার বল করে ৩২ রানে নেন ২ উইকেট।

ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে খেলা রুবেল বাদ পড়েন চোট কাটিয়ে শফিউল ইসলাম ফেরায়। নিজের স্বাভাবিক গতিতে লম্বা স্পেল করার ফিটনেস আর স্বাভাবিক ছন্দ ফিরে পাওয়ার লড়াইয়ে থাকা রুবেলের দারুণ বোলিংয়ে প্রথম ইনিংসে ১৪৪ রানে গুটিয়ে যায় পূর্বাঞ্চল।

ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মিছিলে লড়াই করেন শুধু আবুল হাসান (৪৮) ও ইয়াসির আলী (৪২)। সপ্তম উইকেটে এই দুই জনে গড়েন ৬১ রানের জুটি।

রুবেল ১০ ওভার বল করে ২২ রানে ৫ উইকেট। অফ স্পিনার সোহাগ ৩৯ রানে নেন ২ উইকেট।  

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

দক্ষিণাঞ্চল ১ম ইনিংস: ৯৬.৫ ওভারে ৪০৩ (শাহরিয়ার ২৭, মাহমুদ ০, এনামুল ৮৯, তুষার ৬২, মিঠুন ৪৭, মোসাদ্দেক ৩৯, জিয়া ৭২, সোহাগ ৪৬, রাজ্জাক ৫, রুবেল ০, মুস্তাফিজ ০*; এবাদত ৩/৮৫, খালেদ ২/৮৬, হাসান ২/৮৪, সাকলাইন ১/৭৬, শাহানুর ১/৪৮, তাসামুল ১/১৩)

পূর্বাঞ্চল ১ম ইনিংস: ৪৩ ওভারে ১৪৪ (ইরফান ০, মারুফ ৫, জাকির ১৯, তাসামুল ১, কাপালী ৬, ইয়াসির ৪২, শাহানুর ৯, হাসান ৪৮, সাকলাইন ১, এবাদত ০*, খালেদ ০; মুস্তাফিজ ২/৩২, রুবেল ৫/২২, জিয়া ০/৬, রাজ্জাক ১/৪৩, সোহাগ ২/৩৯)

পূর্বাঞ্চল ২য় ইনিংস: ৩৭ ওভারে ৭৪/৫ (ইরফান ২৭, মারুফ ০, জাকির ১২, তাসামুল ৪, ইয়াসির ১৬, কাপালী ১০*, শাহানুর ০*; মুস্তাফিজ ০/১৭, রুবেল ১/২৩, সোহাগ ১/২৪, রাজ্জাক ২/৮)