অ্যান্ডারসন জাদুতে ইংল্যান্ডের জয়

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-09-09 21:49:17 BdST

৫০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলেছিলেন আগের দিনই। কিন্তু দলের জয় না এলে যে উপলক্ষ্যের মাহাত্ম্যই কমে যায়! মাইলফলক ছোঁয়ার ম্যাচ জেমস অ্যান্ডারসন স্মরণীয় করে রাখলেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে। অর্জনে পূর্ণতা দিল দলের জয়।

অ্যান্ডারসনের জাদুকরী সুইং বোলিং বোলিংয়ে লর্ডস টেস্ট জিতল ইংল্যান্ড। পেস দাপটের টেস্ট অনুমিতভাবে ফল দেখেছে তিন দিনেই। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৯ উইকেটে হারিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ড জিতে নিয়েছে ২-১ ব্যবধানে।

সহায়ক কন্ডিশনে সুইং বোলিংয়ের আরেকটি ‘মাস্টারক্লাস’ দেখিয়ে অ্যান্ডারসন নিয়েছেন ৪২ রানে ৭ উইকেট। ছাড়িয়ে গেছেন নিজের আগের সেরাকে। ২০০৮ সালে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ট্রেন্টব্রিজে নিয়েছিলেন ৪৩ রানে ৭ উইকেট।

বয়সের সঙ্গে যেন আরও ধারালো হয়ে উঠছেন সুইং বোলিংয়ের এই শিল্পী। গত ১০৪ বছরে কোনো ৩৫ বছর বয়সী পেস বোলারের সেরা বোলিং এটি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দিন শুরু করেছিল ২২ রানে এগিয়ে থেকে, হাতে ছিল ৭ উইকেট। প্রথম ঘণ্টাতেই তাদের নাভিশ্বাস তুলে ছাড়েন অ্যান্ডারসন ও ব্রড। দুজনের ১৪ ওভারের যুগলবন্দীতে ক্যারিবিয়নরা ২ উইকেট হারিয়ে তুলতে পারে মাত্র ১৯ রান।

ইংলিশদের সুইং বোলিংয়ের সুনিপুণ প্রদর্শনীর সামনে লড়ছিলেন কেবল শাই হোপ। আগের টেস্টের জোড়া সেঞ্চুরিয়ান এদিনও খেলছিলেন দারুণ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের লড়িয়ে রান করার আশা টিকে ছিল তার ব্যাটেই। কিন্তু তাকেও হার মানতে হয় অ্যান্ডারসনের স্কিলের কাছে।

লাঞ্চের পর অ্যান্ডারসনের দারুণ ডেলিভারিতে ৬২ রানে বিদায় নেন হোপ। ম্যাচের ভাগ্যও পরিষ্কার হয়ে যায় অনেকটা। জেসন হোল্ডারের ২৩ রানে লিডটা পেরিয়েছে একশর বেশি।

ছোট এই রান তাড়ার কাজটি কঠিন করে তুলতে পারেনি ক্যারিবিয়ান বোলাররা। অ্যালেস্টার কুক ফিরেছেন ১৭ রানে। তবে মার্ক স্টোনম্যান ও টম ওয়েস্টলির অপরাজিত ৭২ রানের জুটিতে ম্যাচ শেষ করে দেয় ইংল্যান্ড। রানের জন্য লড়তে থাকা দুই নবীন টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানের রান পাওয়াও ইংল্যান্ডের জন্য স্বস্তির।

তেমমই স্বস্তির, তলানির দলের কাছে আগের টেস্টে হারের পর শেষ পর্যন্ত সিরিজ জয়। অধিনায়ক হিসেবে প্রথম ইংলিশ গ্রীষ্ম জো রুট শুরু করলেন টানা দুটি সিরিজ জয় দিয়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ১২৩

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ১৯৪

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় ইনিংস: ৬৫.১ ওভারে ১৭৭ (আগের দিন ৯৩/৩) (ব্র্যাথওয়েট ৪, পাওয়েল ৪৫, কাইল হোপ ১, শাই হোপ ৬২, চেইস ৩, ব্ল্যাকউড ৫, ডাওরিচ ১৪, হোল্ডার ২৩, বিশু ০, রোচ ৩, গ্যাব্রিয়েল ০*; অ্যান্ডারন ৭/৪২, ব্রড ২/৩৫, রোল্যান্ড-জোন্স ১/৩১, স্টোকস ০/৪১, মইন ০/৬, রুট ০/৫)।

ইংল্যান্ড: (লক্ষ্য ১০৭) ২৮ ওভারে ১০৭/১ (কুক ১৭, স্টোনম্যান ৪০*, ওয়েস্টলি ৪৪*, গ্যাব্রিয়েল ০/২২, রোচ ০/৪, হোল্ডার ০/১৬, বিশু ১/৩৫, চেইস ১/২৫)

ফল: ইংল্যান্ড উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে ইংল্যান্ড ২-১ ব্যবধানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: বেন স্টোকস

ম্যান অব দা সিরিজ: জেমস অ্যান্ডারসন ও শাই হোপ


ট্যাগ:  স্টোকস  ইংল্যান্ড  ম্যাচ রিপোর্ট  অ্যান্ডারসন  ওয়েস্ট ইন্ডিজ  টেস্ট