ভিন্সের দারুণ ইনিংসের পর অস্ট্রেলিয়ার ফেরা

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-11-23 15:01:37 BdST

তার দলে থাকা ছিল বড় চমক। ক্যারিয়ারে আগের ৭ টেস্টে করতে পারেননি তেমন কিছুই। এই মৌসুমে ঘরোয়া ক্রিকেটেও ছিল না বলার মত পারফরম্যান্স। ডাক পেয়ে চমকে গিয়েছিলেন তিনি নিজেও। নতুন জীবনের শুরটা দারুণভাবে রাঙালেন জেমস ভিন্স। অ্যাশেজের প্রথম দিনে তিনিই ইংল্যান্ডের নায়ক।

ভিন্সের সঙ্গে মার্ক স্টোনম্যানের জুটিতে ইংল্যান্ড এক পর্যায়ে ছিল দারুণ অবস্থানে। তবে চা বিরতির আগে-পরে মিলিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে অস্ট্রেলিয়া। বৃষ্টির কারণে অ্যাশেজের প্রথম দিনে ব্রিজবেনে খেলা হয়েছে ৮০.৩ ওভার। ইংল্যান্ড তুলেছে ৪ উইকেটে ১৯৬।

গত বছর ৭ টেস্ট খেলে ভিন্সের সর্বোচ্চ ছিল ৪২। স্বাভাবিকভাবেই জায়গা হারিয়েছিলেন দলে। সেই তিনিই ফেরার ইনিংসে করলেন ৮৩। রান আউটে কাটা না পড়লে হয়ত পেতেন সেঞ্চুরিও।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা ইংল্যান্ড শুরুতেই খায় বড় ধাক্কা। অফ স্টাম্প ঘেষা আউট সুইঙ্গারে মিচেল স্টার্ক ২ রানেই ফেরান অ্যালেস্টার কুককে।

উইকেটে তখন দুই অ্যাশেজ অভিষিক্ত স্টোনম্যান ও ভিন্স। তেতে থাকা অস্ট্রেলিয়ান পেসারদের সামনে তাই ইংলিশদের শঙ্কার কারণ ছিল। তবে চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞা আর দৃঢ়তায় দলকে টানেন দুই অনভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান।

খুব ভালো ফর্মে না থাকলেও ভিন্সকে অ্যাশেজ দলে নেওয়ার মূল কারণ ছিল, অস্ট্রেলিয়ান উইকেটে তার ব্যাটিং কার্যকর হবে বলে মনে করেছিলেন নির্বাচকরা। ২৬ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান যৌক্তিকতা প্রমাণ করলেন সেই সিদ্ধান্তের।

ড্রাইভ তার বরাবরই প্রিয়। জোনে পেলে এদিন খেলেছেন দারুণ কিছু ড্রাইভ। স্টোনম্যান মন দিয়েছেন উইকেট আকড়ে রাখায়। দিনের শুরুতে জুটি বাঁধা দুজনকে দলকে নিয়ে যায় চা-বিরতির কাছে। স্টার্ক, কামিন্স, লায়নরা বোলিং করেছেন দারুণ। কিন্তু এই দুজন সুযোগই দেননি।

চা বিরতির আগের ওভারে অস্ট্রেলিয়া পায় কাঙ্ক্ষিত ব্রেক থ্রু। রাউন্ড দা উইকেটে এসে ভেতরে ঢোকা এক গোলায় কামিন্স বোল্ড করে দেন স্টোনম্যানকে। টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটিতে বাঁহাতি ওপেনার করেছেন ১৫৯ বলে ৫৩।

এটির একটু আগেই লায়নের বলে ৬৮ রানে ভিন্সের ক্যাচ ছাড়েন উইকেটকিপার টিম পেইন। সেঞ্চুরির পথে এগোতে থাকা ভিন্সকে শেষ পর্যন্ত ফেরান লায়নই। তবে বোলিংয়ে নয়, অসাধারণ ফিল্ডিংয়ে। সিঙ্গেল চুরির চেষ্টায় থাকা ভিন্সকে ক্ষিপ্রতা আর নিখুঁত নিশানায় সরাসরি থ্রোয়ে রান আউট করেন লায়ন। অষ্টম টেস্টে প্রথম ফিফটিতে ভিন্স করেছেন ১৭০ বলে ৮৩।

দ্বিতীয় সেশনে আরও একটি বড় উইকেট পায় অস্ট্রেলিয়া। কামিন্স ফিরিয়ে দেন ইংলিশ অধিনায়ক জো রুটকে।

শুরুটা নড়বড়ে হলেও দিনের শেষভাগে কিছুটা ছন্দ খুঁজে পান ডাভিড মালান। দিন শেষ করেছেন তিনি মইন আলিকে নিয়ে।

শুধু দুটি উইকেট পেয়েছেন বলেই নয়, গতি ও আগ্রাসন মিলিয়ে দিনের সেরা বোলার ছিলেন কামিন্স। প্রথম দিন বিবেচনায় অসাধারণ বোলিং করেছেন লায়ন। পেয়েছেন টার্ন ও ড্রিফট। ২৪ ওভারে রান দিয়েছেন মাত্র ৪০। উইকেট যদিও মেলেনি। শেফিল্ড শিল্ডে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা জস হেইজেলউড সেই তুলনায় ছিলেন একটু বিবর্ণ।

দিনের শেষভাগে অস্ট্রেলিয়া নিয়েছে দ্বিতীয় নতুন বল। দ্বিতীয় দিন সকালে তাই অস্ট্রেলিয়া থাকবে আশায়। ইংলিশদের বড় চ্যালেঞ্জও হবে এটিই।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৮০.৩ ওভারে ১৯৬/৪ (কুক ২, স্টোনম্যান ৫৩, ভিন্স ৮৩, রুট ১৫, মালান ২৮*, মইন ১৩*; স্টার্ক ১/৪৫, হেইজেলউড ০/৫১, কামিন্স ২/৫৯, লায়ন ০/৪০)।


ট্যাগ:  ইংল্যান্ড  ভিন্স  অস্ট্রেলিয়া  টেস্ট