রোমাঞ্চকর শেষের অপেক্ষায় অ্যাডিলেড

  • স্পোর্টস ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-12-05 18:47:53 BdST

শন মার্শের সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস ঘোষণা। বোলারদের সৌজন্যে দুইশ ছাড়ানো লিড। এরপর আচমকাই ম্যাচে হাওয়া বদল। ইংলিশ বোলারদের দুর্দান্ত ফেরা। জো রুটের ভরসায় রান তাড়ায় এগিয়ে যাওয়া। উত্থান-পতনের নানা ধাপ পেরিয়ে অ্যাডিলেড টেস্ট দাঁড়িয়ে রোমাঞ্চকর এক মোড়ে।

জয়ের জন্য শেষ দিনে ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ১৭৮ রান, অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ৬ উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া গুটিয়ে গেছে ১৩৮ রানে। অস্ট্রেলিয়ার চতুর্থবারের সফরে প্রথমবার ৫ উইকেটের স্বাদ পেয়েছেন জেমস অ্যান্ডারসন।

৩৫৪ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ইংল্যান্ড চতুর্থ দিন শেষ করেছে ৪ উইকেটে ১৭৬ রানে।

অস্ট্রেলিয়া দিন শুরু করেছিল ৪ উইকেটে ৫৩ রান নিয়ে। দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান পিটার হ্যান্ডসকম ও ন্যাথান লায়নকে দিনের শুরুতেই ফেরান জেমস অ্যান্ডারসন।

আগের দিন দুর্দান্ত বোলিং করা ক্রিস ওকস এদিনও ছিলেন ছন্দে। এই পেসার ফিরিয়ে দেন অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসের দুই নায়ক শন মার্শ ও টিম পেইনকে।

শেষ দিকে একটি করে চার ও ছক্কায় ২০ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেন মিচেল স্টার্ক। তাকে ফিরিয়েই অ্যান্ডারসন পূর্ণ করেন বহু কাঙ্ক্ষিত ৫ উইকেট। অস্ট্রেলিয়ায় ১৫তম টেস্টে প্রথমবার ৫ উইকেটের স্বাদ পেলেন পাঁচশর বেশি উইকেট শিকারি পেসার।

ব্যাটিং বিপর্যয়ের পরও প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার বড় লিডে ইংল্যান্ডের লক্ষ্যটা ছিল কঠিনই। তবে দলকে ভালো শুরু এনে দেন মার্ক স্টোনম্যান ও অ্যালেস্টার কুক।

কুক বেঁচে যান শূন্য রানেই। জশ হেইজেলউডের বলে এলবিডব্লিউয়ের আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার। অস্ট্রেলিয়া নেয়নি রিভিউ। নিলে আউট হতেন কুক। পরে প্রথম আউট হন সেই কুকই। তবে ততক্ষণে শুরুর জুটিতে রান এসেছে ৫৩।

দারুণ খেলতে থাকা স্টোনম্যান ও তিনে নামা জেমস ভিন্সকে অল্প সময়ের মধ্যে ফেরান স্টার্ক। এরপরই গড়ে উঠে ইংল্যান্ডকে ম্যাচ জিইয়ে রাখা জুটি।

জো রুট শুরু থেকেই ছিলেন সাবলীল। ডাভিড মালানকে করতে হয়েছে লড়াই। ধুঁকেছেন, ভুগেছেন। কিন্তু লড়াই ছাড়েননি মালান। রুটের সঙ্গে গড়ে তোলেন ৭৮ রানের জুটি।

শেষ বেলায় অসাধারণ এক ডেলিভারিতে কামিন্স শেষ করেছেন মালানের লড়াই। তবে শেষ হয়নি রুট ও ইংল্যান্ডের লড়াই।

জিততে হলে চতুর্থ ইনিংসে নিজেদের সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ড গড়তে হবে ইংলিশদের। ৩৩২ রান তাড়ায় জয়ের এখনকার রেকর্ডও অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে। তবে সেই ১৯২৮ সালে।

নতুন ইতিহাস গড়ার কাজটা খুব কঠিন। তবু বেঁচে আছে স্বপ্ন। কারণ টিকে আছেন রুট!

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: ৪৪২/৮(ডি)

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২২৭

অস্ট্রেলিয়া ২য় ইনিংস: ৫৮ ওভারে ১৩৮ (আগের দিন ৫৩/৪)(ব্যানক্রফট ৪, ওয়ার্নার ১৪, খাওয়াজা ২০, স্মিথ ৬, হ্যান্ডসকম ১২, লায়ন ১৪, মার্শ ১৯, পেইন ১১, স্টার্ক ২০, কামিন্স ১১*, হেইজেলউড ৩; অ্যান্ডারসন ৫/৪৩, ব্রড ০/২৬, ওভারটন ১/১১, ওকস ৪/৩৬, মইন ০/২০)।

ইংল্যান্ড ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ৩৫৪) ৬২ ওভারে ১৭৬/৪ (কুক ১৬, স্টোনম্যান ৩৬, ভিন্স ১৫, রুট ৬৭* মালান ২৯, ওকস ৫*; স্টার্ক ২/৬৫, হেইজেলউড ০/৩৭, কামিন্স ১/২৯, লায়ন ১/৩৭)


ট্যাগ:  ইংল্যান্ড  অ্যান্ডারসন  অস্ট্রেলিয়া  টেস্ট  ম্যাচ রিপোর্ট