পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

বোলিংয়ের আগে বোল্ট-সাউদির ব্যাটিং ঝলক

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2017-12-10 13:43:12 BdST

bdnews24
ছবি: ব্ল্যাকক্যাপস টুইটার

বল হাতে দুজনের ভালো বোলিং অনুমিতই ছিল। সেটি তারা করেছেনও। তবে তার আগে ব্যাট হাতেও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ভোগালেন টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্ট। প্রথম দিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের লড়াই দ্বিতীয় দিনে গেল হারিয়ে। বড় লিডের পথে নিউ জিল্যান্ড।

হ্যামিল্টন টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৩৭৩ রান করেছে নিউ জিল্যান্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজ রোববার দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে ৮ উইকেটে ২১৫ রানে।

নিউ জিল্যান্ড দিন শুরু করেছিল ৭ উইকেটে ২৮৬ রানে। দল তাকিয়ে ছিল আগের টেস্টে অভিষেকে সেঞ্চুরি করা টম ব্লান্ডেলের দিকে। কিন্তু ২৮ রানে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে বোল্ড হন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। গালিতে শেই হোপের দুর্দান্ত ক্যাচে আগেই ফেরেন নিল ওয়েগনার।

কিন্তু সাউদি ও বোল্ট ছোটেন ওয়ানডে ব্যাটিংয়ের অভিযানে। শেষ উইকেটে ৪৯ বলে ৬১ রানের দুর্দান্ত জুটি গড়েন দুজন।

৩৯ বলে ৩১ রান করে কেমার রোচের বলে সাউদি বোল্ড হলে থামে কিউইদের ইনিংস। ২৭ বলে ৩৭ রানে অপরাজিত থাকেন বোল্ট।

ব্যাটিংয়ের আত্মবিশ্বাস বোলিংয়েও নিয়ে আসেন দুজন। ইনিংসের প্রথম ওভারেই কাইরান পাওয়েলকে ফেরান সাউদি। তিনে নামা শিমরন হেটমায়ারকে অসাধারণ এক ফিরতি ক্যাচে ফেরান বোল্ট।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ এরপর উইকেট হারিয়েছে নিয়মিত বিরতিতে। লড়াই করে গেছেন কেবল ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট। এই টেস্টের অধিনায়ক যখন ৬৬ রানে ফেরেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজের রান ৬ উইকেটে ১৩৫।

উইকেটকিপার শেন ডাওরিচ ও অভিষিক্ত রেমন্ড রেইফার এরপর গড়েন খানিকটা প্রতিরোধ। ৭ চারে ৩৫ রান করা ডাওরিচকে ফিরিয়ে দেন আগে টেস্টের নায়ক নিল ওয়েগনার।

বৃষ্টি বাধা আর ক্যারিবিয়ান লোয়ার অর্ডারের একটু প্রতিরোধে এদিন আর অলআউট হয়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অভিষিক্ত অলরাউন্ডার রেইফার ২২ রানে অপরাজিত ৮২ বলে।

নিউ জিল্যান্ডের চার পেসারই নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। তবে জোড়ায় জোড়ায় শিকারের আগে ব্যাটিংয়ে দারুণ জুটির সৌজন্যে দিনের দুই নায়ক বোল্ট-সাউদি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নিউ জিল্যান্ড ১ম ইনিংস: ১০২.২ ওভারে ৩৭৩ (আগের দিন ২৮৬/৭)(ব্লান্ডেল ২৮, ওয়েগনার ১, সাউদি ৩১, বোল্ট ৩৭*; গ্যাব্রিয়েল ৪/১১৯, রোচ ৩/৫৮, কামিন্স ২/৫৭, চেইস ০/৯০, রেইফার ১/৩৬, ব্র্যাথওয়েট ০/১২)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ৬৪ ওভারে ২১৫/৮ (ব্র্যাথওয়েট ৬৬, পাওয়েল ০, হেটমায়ার ২৮, হোপ ১৫, চেইস ১২, আমব্রিস ২, ডাওরিচ ৩৫, রেইফার ২২*, রোচ ১৭, কামিন্স ১০*; সাউদি ২/৩৪, বোল্ট ২/৬৭, ডি গ্র্যান্ডহোম ২/৪০, ওয়েগনার ২/৭৩)।