পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

রানের পাহাড় গড়ে মোহামেডানের জয়

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2018-02-19 17:19:53 BdST

bdnews24

লিগে বিবর্ণ শুরুর পর টানা দ্বিতীয় জয় পেয়েছে মোহামেডান। ইরফান শুক্কুর, রকিবুল হাসানের দারুণ ব্যাটিংয়ে রানের পাহাড় গড়া দলটি সহজেই হারিয়েছে অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে।

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের চতুর্থ রাউন্ডের ম্যাচে ১৫৯ রানে জিতেছে মোহামেডান। ৩৩৫ রান তাড়ায় ১৭৬ রানে গুটিয়ে গেছে অগ্রণী ব্যাংক।

এই ম্যাচ দিয়ে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ফেরে প্রিমিয়ার লিগ। সোমবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দুই ভাই জনি তালুকদার ও রনি তালুকদারের ব্যাটে দারুণ সূচনা পায় মোহামেডান।

৯.৩ ওভার স্থায়ী ৭১ রানের উদ্বোধনী জুটিতে রনির অবদান ২৬ রান। ছোট এক ধসে ভালো শুরুর সুবিধা হারাতে বসেছিল মোহামেডান। বিনা উইকেটে ৭১ থেকে তাদের স্কোর পরিণত হয় ১২১/৪-এ। ৩৭ বলে ৪৩ রান করে ফিরে যান জনি। দ্রুত ফিরেন শামসুর রহমান ও আমিনুল হক।

পঞ্চম উইকেটে রকিবুল হাসানের সঙ্গে ১১২ রানের জুটিতে দলকে কক্ষপথে ফেরান উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান শুক্কুর। ৮৫ বলে ৭৭ রান করা রকিবুলকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন আব্দুর রাজ্জাক।

প্রথমবারের মতো চলতি আসরে খেলতে নেমেই ঝড় তোলেন বিপুল শর্মা। তাকে সঙ্গ দিয়ে যান ম্যাচ সেরা ইরফান শুক্কুর। তবে শতকের সম্ভাবনা জাগিয়ে আরও একবার কাটা পড়েন নব্বইয়ের ঘরে। ৮৩ বলে ৮টি চার ও দুটি ছক্কায় ফিরেন ৯২ রান করে। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে তার সর্বোচ্চ ৯৫।

শেষটায় বোলারদের ওপর যেন তাণ্ডব চালান অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার এনামুল হক। ৯ বলে অপরাজিত থাকেন ২০ রানে। ইনিংসের শেষ বলে আউট হওয়ার আগে দুটি করে ছক্কা-চারে ২৯ বলে ৪১ রান করেন বিপুল। শেষ ১০ ওভারে ১০৩ রান তুলে নেয় মোহামেডান।

অগ্রণী ব্যাংকের তিন মূল বোলারই ছিলেন খরুচে। আল আমিন হোসেন ২ উইকেট নেন ৭০ রানে। ৭২ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন রাজ্জাক। ৮৩ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন শফিউল।

আগের দিন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে শূন্য রানে ফেরা সৌম্য সরকার লিগেও পেলেন না রান। শুভাশিস রায়ের বলে ফিরেন বোল্ড হয়ে। আরেক ওপেনার আজমির আহমেদ ফিরেন ৭ রান করে।

শুরুতেই দিক হারানো অগ্রণী ব্যাংক আর কখনও ম্যাচে ফিরতে পারেনি। দুই ওপেনার ছাড়া প্রথম নয় ব্যাটসম্যানের বাকি সাতজনই যান দুই অঙ্কে। কিন্তু পঞ্চাশ ছুঁতে পারেননি কেউই।

সর্বোচ্চ ৪০ রান করেন ধীমান ঘোষ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৩ রান রাজ্জাকের।  

ভারতীয় অলরাউন্ডার বিপুল ২ উইকেট নেন ২২ রানে। দুটি করে উইকেট নেন শুভাশিস, এনামুল ও কাজী অনিক।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব: ৫০ ওভারে ৩৩৫/৭ (জনি ৪৩, রনি ২৬, শামসুর ১, আমিনুল ১৭, রকিবুল ৭৭, ইরফান ৯২, বিপুল ৪১, এনামুল ২০*; শফিউল ০/৮৩, আল আমিন ২/৭০, সৌম্য ২/৩২, রাজ্জাক ২/৭২, ইশাক ১/৩৮, আজমির ০/২৪, সালমান ০/১০)

অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব: ৩৭.৪ ওভারে ১৭৬ (আজমির ৭, সৌম্য ০, শাহরিয়ার ২২, রাফাতুল্লাহ ২২, ধীমান ৪০, সালমান ১৭, জাভেদ ১৭, রাজ্জাক ২৩, শফিউল ১৪, ইশাক ৬, আল আমিন ১*; শুভাশিস ২/২৯, অনিক ২/৪২, এনামুল ২/৩৫, তাইজুল ১/২১, বিপুল ২/২২, শামসুর ১/২৪)

ফল: মোহামেডান ১৫৯ রানে জয়ী

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: ইরফান শুক্কুর