পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

জুনায়েদের সেঞ্চুরিতে ব্রাদার্সের জয়

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2018-03-08 18:23:48 BdST

bdnews24

ভালো শুরু কাজে লাগাতে পারছিলেন না জুনায়েদ সিদ্দিক। এবার পারলেন বাঁহাতি ওপেনার। তুলে নিলেন লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি। ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেললেন মাইশুকুর রহমান। দুই জনের ব্যাটে কলাবাগান ক্রীড়া চক্রকে সহজেই হারাল ব্রাদার্স ইউনিয়ন।

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের অষ্টম রাউন্ডের ম্যাচ ১৩১ রানে জিতেছে ব্রাদার্স। ৩১৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ৪৫ ওভারে ১৮৬ রানে গুটিয়ে গেছে কলাবাগান।

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় ওভারে মিজানুর রহমানকে হারায় ব্রাদার্স। দ্বিতীয় উইকেটে ৩৬ ওভারে ২০৫ রানের দারুণ জুটিতে দলকে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন জুনায়েদ-মাইশুকুর।

লিগে আগের সাত ম্যাচে দুই অঙ্কে যাওয়া জুনায়েদ পঞ্চাশ ছুঁতে পারেননি একবারও। এবার ১১১ বলে ১৬টি চার ও তিনটি ছক্কায় খেললেন ১২৩ রানের চমৎকার ইনিংস। এই ইনিংস তাকে এনে দিয়েছে ম্যাচ সেরার পুরস্কার। 

আগের সেরা ৮৮ ছাড়িয়ে যাওয়া মাইশুকুর ছিলেন লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের প্রথম সেঞ্চুরির পথে। তবে মাত্র চার রানের জন্য সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপে পুড়তে হয় এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানকে। ১২১ বলে খেলা তার ৯৬ রানের ইনিংসে ৬টি চারের পাশে ছক্কা তিনটি।

দুটি করে ছক্কা-চারে ২৬ রান করে ফিরে যান অলক কাপালী। শেষের দিকে ভারতীয় ব্যাটসম্যান অভিষেক রমন ও ইয়াসির আলী চৌধুরীর ব্যাটে তিনশ ছাড়ায় ব্রাদার্সের সংগ্রহ।

রান তাড়ায় কখনও সেভাবে জয়ের সম্ভাবনা জাগাতে পারেননি কলাবাগান। গড়ে তুলতে পারেননি তেমন কোনো জুটি।

আগের ম্যাচ সেঞ্চুরি করা তাসামুল হক (৪৪) ফিরেন রান আউট হয়ে। সেই ম্যাচের আরেক সেঞ্চুরিয়ান মোহাম্মদ আশরাফুল আবার আউট শূন্য রানে। শেষ চার ম্যাচে এনিয়ে তিনবার ফিরলেন রানের খাতা খোলার আগেই।

পাকিস্তানের অলরাউন্ডার আকবর উর রেহমান ফিরেন ৩৫ রান করে। ১২৪ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলে দলকে দুইশ রানের কাছাকাছি নিয়ে যান অধিনায়ক মুক্তার আলী। ৫৯ বলে ছয়টি ছক্কা ও দুটি চারে ৬২ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি।

৩৯ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ব্রাদার্সের সেরা বোলার সোহরাওয়ার্দী শুভ। দুটি করে উইকেট নেন শাখাওয়াত হোসেন ও মেহেদী হাসান রানা।

আট ম্যাচে এটি ব্রাদার্সের চতুর্থ জয়। সমান ম্যাচে কলাবাগানের ষষ্ঠ হার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ব্রাদার্স ইউনিয়ন: ৫০ ওভারে ৩১৭/৪ (মিজানুর ৮, জুনায়েদ ১২৩, মাইশুকুর ৯৬, কাপালী ২৬, রমন ২২*, ইয়াসির ৩০*; হাসান ১/৫৪, মুক্তার ১/৭১, মাহমুদুল ১/৩৯, ফেরদৌস ০/২২, সঞ্জিত ০/৩২, নাহিদ ০/৩০, আকবর ০/৫২, আশরাফুল ০/১২)

কলাবাগান ক্রীড়া চক্র: ৪৫ ওভারে ১৮৬ (তাসামুল ৪৪, জসিম ৭, আশরাফুল ০, আকবর ৩৫, তাইবুর ৩, মাহমুদুল ৮, হাসান ১১, মুক্তার ৬২*, ফেরদৌস ৫, সঞ্জিত ২, নাহিদ ২; খালেদ ১/৩০, শুভ ৩/৩৯, শাখাওয়াত ২/৩১, রানা ২/৩১, রমন ০/৬, কাপালী ১/২২, ইয়াসির ০/২৬)

ফল: ব্রাদার্স ইউনিয়ন ১৩১ রানে জয়ী

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: জুনায়েদ সিদ্দিক